মেইন ম্যেনু

ধুনট ইউপি নির্বাচন, ৫ পেট্রোল বোমা উদ্ধার

তৃতীয় ধাপে বগুড়া জেলার তিনটি উপজেলার ২২টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শনিবার সকাল থেকে তীব্র দাবদাহ উপেক্ষা করে ভোটাররা লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিচ্ছেন। বেলা ১১ পর্যন্ত কোথাও কোনো গোলযোগের খবর পাওয়া যায়নি। তবে, ধুনটে একটি ভোটকেন্দ্রের পাশে খড়ের পাল্লার ভেতর থেকে ৫টি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এছাড়া সারিয়াকান্দী উপজেলার কাজলা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে বিএনপির চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীরা ভোটবর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন।

তৃতীয় ধাপে বগুড়ার গাবতলীতে ১১টি, ধুনটে ১০টি এবং সারিয়াকান্দী উপজেলার স্থগিতকৃত দুর্গম চরে কাজলা ইউনিয়নে শনিবার সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। সম্ভাব্য সহিংসতার আশঙ্কায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব এবং বিজিবি সদস্যরা ভোটকেন্দ্রে টহল দিচ্ছে।

এদিকে, ভোটগ্রহণ চলাকালে ধুনট সদর ইউনিয়নের বেলকুচি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের পাশে একটি খড়ের পাল্লার ভেতর থেকে ৫টি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ওই কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশের পরিদর্শক আশিকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খড়ের পাল্লা তল্লাশি করে পেট্রোল বোমাগুলো উদ্ধার করা হয়েছে।

অপরদিকে, সারিয়াকান্দী উপজেলার কাজলা ইউনিয়নের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ এনে ভোটবর্জন করেছে বিএনপি।

বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম ভোটবর্জনের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, চরাঞ্চলের এই ইউনিয়নের নিয়ন্ত্রণ নিতে আওয়ামী লীগ নির্বাচন কমিশন এবং প্রশাসনকে ম্যানেজ করেছে। এখানে ভোটের কোনো সুষ্ঠু পরিবেশ নেই। এ কারণে বিএনপির চেয়ারম্যান এবং মেম্বার প্রার্থীরা ভোটবর্জন করেছে।






মন্তব্য চালু নেই