মেইন ম্যেনু

নতুন করে ৫ লাখ জনশক্তি নেবে সৌদি আরব

বাংলাদেশ থেকে নতুন করে ৫ লাখ জনশক্তি নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে সৌদি আরব। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন। এক্ষেত্রে চিকিৎসক, প্রকৌশলী, শিক্ষকসহ অন্যান্য খাতে এ জনশক্তি নেবে দেশটি।

রোববার রাতে জেদ্দা কনফারেন্স প্যালেসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের সময় এ আগ্রহের কথা জানান দেশটির শ্রমমন্ত্রী মোফারেজ আল-হকুবানি। সাক্ষাৎ শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব বলেন, “সৌদি মন্ত্রী বলেছেন, তারা আরো পাঁচ লাখ জনশক্তি নিতে চায়।”

প্রেস সচিব বলেন, সৌদি শ্রমমন্ত্রী বলেছেন, ৪২ হাজার নারীসহ বাংলাদেশি শ্রমিকেরা সুনামের সঙ্গে এখানে কাজ করছেন। শ্রমিকের পাশাপাশি চিকিৎসক, প্রকৌশলী ও শিক্ষক নেওয়াও তাদের লক্ষ্য। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও সৌদি শ্রমমন্ত্রী জনশক্তি নিয়োগে মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের দৌরাত্ম থামানোর পক্ষে মত দিয়েছেন বলে ইহসানুল করিম জানান।

শেখ হাসিনা জনশক্তি নিয়োগে মধ্যস্বত্ত্বভোগীগের সুযোগ না দিতে মোফারেজ আল-হকুবানির প্রতি আহ্বান জানান। সৌদি মন্ত্রীও শ্রমিকদের রক্ষায় তাদের দায়িত্বের কথা তুলে ধরেন।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, গৃহকর্মী হিসেবে বাংলাদেশ থেকে যেসব নারী বাইরে কাজ করতে যাচ্ছেন, তাদের জন্য বর্তমানে স্বল্পমেয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করা হয়েছে। ভবিষ্যতে প্রশিক্ষণ কোর্সের মেয়াদ বাড়ানো হবে।

উল্লেখ, সরকারি হিসাবে বর্তমানে ১২ লাখ ৮০ হাজার বাংলাদেশি সৌদি আরবে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত। এ হিসাবে সৌদি আরবই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার।

সৌদি বাদশাহ সালমানের আমন্ত্রণে পাঁচদিনের সফরে মঙ্গলবার জেদ্দা পৌঁছান শেখ হাসিনা। ওই রাতেই তিনি ওমরাহ পালন করেন।। রোববার জেদ্দায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও সৌদি বাদশাহর মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হয়।

মঙ্গলবার সকালে মদিনার প্রিন্স মোহাম্মাদ বিন আব্দুল আজিজ বিমানবন্দর থেকে রওনা হয়ে সন্ধ্যায় ঢাকা পৌঁছনোর কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।






মন্তব্য চালু নেই