মেইন ম্যেনু

নতুন প্রজন্ম গড়ায় আত্মনিয়োগ করবেন ওবামা

বারাক ওবামা তাঁর অবসর সময়ে একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট হিসেবে বসে থাকবেন না। অতীতের গৌরবগাথা নিয়েই শুধু কথা বলবেন না। তিনি আমেরিকার নতুন প্রজন্মকে গড়ে তোলার কাজে নিজেকে ব্যস্ত রাখবেন।

সিএনএনের বিশ্লেষক ও ওবামার সাবেক উপদেষ্টা ডেভিড এক্সেল রডকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গত ৮ নভেম্বরের নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটনের হেরে যাওয়া প্রসঙ্গে ওবামা বলেন, ভুল বিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করে নির্বাচনী প্রচারণা চালানো হয়েছে। হিলারির প্রচার শিবিরের মূল বিশ্বাস ছিল—ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত।

হিলারির পরাজয়ে নিজের আট বছর মেয়াদের কর্মকাণ্ডকে জনগণের প্রত্যাখ্যানের ফল হিসেবে মেনে নিতে নারাজ ওবামা। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিজয়ের যে যৌথযাত্রা গড়ে তোলা হয়েছে, ডেমোক্রেটিক পার্টি ও হিলারির প্রচার শিবির তা অনুসরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে।

ওবামা দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, তিনি যদি ফের নির্বাচনে লড়তেন, আমেরিকার জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারতেন।

আগামী ২০ জানুয়ারি দায়িত্ব ছাড়বেন ওবামা। দায়িত্ব ছাড়ার পরের ভূমিকা সম্পর্কে ওবামা বলেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময় নিত্যনৈমিত্তিক বিষয়গুলো এড়িয়ে যাবেন তিনি।

একজন অ্যাকটিভিস্ট হিসেবে সুদূরপ্রসারী ভূমিকা রাখবেন বলেও জানান ওবামা।

বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, নতুন প্রজন্মের কাছে নিজের পরিবর্তনের ধারণা ছড়িয়ে দেবেন তিনি। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তাদের প্রশিক্ষণে কাজ করবেন।

পরবর্তী প্রজন্মের নেতৃত্ব, সংগঠক, সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদ গড়ে তোলার জন্য ওবামা নিজেকে আত্মনিয়োগ করবেন বলে উল্লেখ করেন।

ওবামা বলেন, ২০ থেকে ৩০ বছর বয়সী আমেরিকানদের মধ্যে মেধা ও আদর্শবাদ লক্ষ করেছেন তিনি। তাঁদের সঠিক সংযোগ দেওয়াটাই এখন কাজ। নতুন প্রজন্মের কাছে প্রগতিশীল ধারণার সন্নিবেশ ঘটাতে তিনি কাজ করছেন।

ওবামা জানান, এর মধ্যে তিনি আরও একটি বই লেখা শুরু করেছেন।

আমেরিকার সাম্প্রতিক ইতিহাসে দেখা গেছে, দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্টরা প্রত্যক্ষ রাজনীতি থেকে বিরত থাকেন। বই লেখেন। লাইব্রেরি ও ফাউন্ডেশন গঠন করেন। নিজেদের জনকল্যাণে নিয়োজিত রাখেন। দায়িত্ব ছাড়ার পর ওবামা কী করেন, তা দেখায় অপেক্ষায় যুক্তরাষ্ট্রসহ সারা বিশ্বের মানুষ।






মন্তব্য চালু নেই