মেইন ম্যেনু

নতুন বছরে মাতৃভাষায় পড়বে পাহাড়ি শিশুরা

প্রান্ত রনি, রাঙামাটি : স্বাধীনতার সাড়ে চার দশক পর অবশেষে পার্বত্য এলাকার আদিবাসী বা ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠী শিশুরা প্রথম বারের মত ২০১৭ শিক্ষাবর্ষে প্রাক-প্রাথমিকে চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা, সাদরি ও গারো এই পাঁচটি ভাষার বই পাবে তারা। ফলে নিজ মাতৃভাষায় প্রাথমিক শিক্ষা লাভের অধিকার প্রতিষ্টা পাচ্ছে আদিবাসীদের ।

বছরের শুরুতেই স্কুলে স্কুলে যাচ্ছে নিজ মাতৃভাষায় পাঠ্যবই। পাহাড়ের এসব আদিবাসী গোষ্ঠীর নিজস্ব ভাষা থাকলেও স্কুলে মাতৃভাষায় শিক্ষা লাভের কোনো সুযোগ নেই বলে শুরুতেই অনেক শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়ে যায়।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়, ১ থেকে ৫ জানুয়ারীর মধ্যে প্রাক-প্রাথমিকের অন্যান্য পাঠ্য বইয়ের সাথে পাহাড়ি স্কুল গুলোতে বিতরণ করা হবে পাহাড়িদের মাতৃভাষার বইগুলো।

এনসিটিবি সূত্রে জানা যায় গেছে, আদিবাসীদের ভাষায় প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ের বইয়ের সঙ্গে প্রথমবারের মতো দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য ৯ হাজার ৬৬টি ব্রেইল বই তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া শিক্ষকদের জন্যও এবারই প্রথম প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে টিচিং গাইড এবং টিচিং কারিকুলাম গাইড তৈরি করেছে এনসিটিবি।

এছাড়া প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, মাধ্যমিক, দাখিল, দাখিল ভোকেশনাল, এসএসসি ভোকেশনাল, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী, পাঁচটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক সহায়িকা ও শিক্ষক নির্দেশিকা- সব মিলিয়ে ২০১৭ শিক্ষাবর্ষে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য ৩৬ কোটি ৩ লাখ ১৮ হাজার ৯৭৯টি বই ছাপানো হয়েছে বলে এনসিটিবি সূত্রে জানা যায়।






মন্তব্য চালু নেই