মেইন ম্যেনু

নতুন বছরে সমৃদ্ধি, শান্তি কামনা রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর

খ্রিষ্টীয় নববর্ষ উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলের নেতা বেগম রওশন এরশাদ।

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো পৃথক বাণীতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেন, ‘কালের বিবর্তনে খ্রিষ্টীয় নববর্ষ উদযাপন আমাদের জাতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে গভীরভাবে সম্পৃক্ত। কোনো ধরনের অপসংস্কৃতি যেন এই আনন্দধারাকে ব্যাহত করতে না পারে সেই লক্ষ্যে সকলকে সজাগ থাকতে হবে।’

বিগত বছরের সকল অকল্যাণ ও ব্যর্থতার গ্লানি মুছে নতুন বছর সবার জন্য বয়ে আনুক সমৃদ্ধি ও বিজয়ের বাণী- এ কামনা করেন রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, ‘খ্রিষ্টীয় নববর্ষ আমাদের সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে প্রত্যাশা পূরণে নতুন সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।’

পৃথক এক বাণীতে দেশবাসীর উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। বৈশ্বিক শান্তিসূচক, ক্ষুধাসূচক, খাদ্যসূচক, লিঙ্গ-বৈষম্যসূচক, শিশু ও মাতৃমৃত্যু হার, বৈশ্বিক সমৃদ্ধিসূচক, বিশ্বগণমাধ্যম সূচকসহ সকলক্ষেত্রে বাংলাদেশ পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে গেছে এবং অনেকক্ষেত্রে ভারতের চাইতে আমাদের অবস্থান ভালো।’

দেশ গড়ার কাজে প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আসুন, মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে আমরা ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, অসাম্প্রদায়িক, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ গড়ে তুলি। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘স্বপ্নের সোনার বাংলা’ প্রতিষ্ঠা করি।’

নতুনের আহ্বানে পুরাতন বছরের সব জঞ্জাল ধুয়ে-মুছে যাক। নতুন বছর আমাদের সবার জীবনে অনাবিল সুখ, সমৃদ্ধি ও শান্তি বয়ে আনুক। মহান আল্লাহতায়ালার কাছে এই প্রার্থনা করেন প্রধানমন্ত্রী।

এক বাণীতে প্রবাসীসহ দেশবাসীকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান বিরোধী দলের নেতা বেগম রওশন এরশাদ এমপি। তিনি বলেন, নতুন বছর সবার জীবনে সকল ব্যর্থতা ও গ্লানি মুছে বয়ে আনুক অনাবিল সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি। সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করে দেশের জন্য বয়ে আনুক আরো সাফল্য।

নতুন বছরে দেশ ও জাতির সমৃদ্ধির ক্ষেত্রে হিংসা-বিদ্বেষ পরিহার করে দেশবাসীকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান রওশন এরশাদ।






মন্তব্য চালু নেই