মেইন ম্যেনু

নফল নামাজের বিশেষ ফজিলত

মুসলমানের জন্য দুনিয়ার জীবনে নামাজের গুরুত্ব ও ফজিলত সর্বাধিক। তাইতো রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ফরজ নামাজের পাশাপাশি নফল নামাজের গুরুত্বারোপ করেছেন। পরকালে কঠিন বিপদের সময় এ নফল নামাজই মানুষের চূড়ান্ত ফয়সালায় কাজে আসবে। হাদিসে এসেছে-

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, কিয়ামাতের দিন মহান আল্লাহ তাআলা বান্দার কাছ থেকে সর্বপ্রথম তার ফরজ নামাজের হিসাব নিবেন।

যদি ফরজ নামাজ পরিপূর্ণ ও ঠিক থাকে তাহলে সে সফলকাম হবে এবং মুক্তি পাবে। আর যদি ফরজ নামাজে কোনো ঘাটতি দেখা যায়, তখন ফেরেশতাদের বলা হবে, দেখো তো আমার বান্দার কোনো নফল নামাজ আছে কিনা?

তার যদি নফল নামাজ থেকে থাকে তাহলে তা দিয়ে আমার বান্দার ফরজের এ ঘাটতি পূরণ করো। অতপর অন্যান্য ‘আমলগুলোও (রোজা ও জাকাত) এভাবে গ্রহণ করা হবে। (তিরমিজি, আবু দাউদ, ইবনে মাজাহ, নাসাঈ)

পরিশেষে…
ফরজ নামাজসহ আল্লাহ তাআলার সকল বিধান যথাযথ পালনের পাশাপাশি দুনিয়ার শান্তি ও পরকালের মুক্তি জন্য নফল নামাজ আদায় করা জরুরি। আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে ফরজ নামাজ আদায়ের সঙ্গে মঙ্গে নফল নামাজ আদায় করার তাওফিক দান করুন। আমিন।






মন্তব্য চালু নেই