মেইন ম্যেনু

নবীগঞ্জে পালিত হলো বাংলা নববর্ষ পহেলা বৈশাখ

ছনি চৌধুরী, (হবিগঞ্জ)নবীগঞ্জ প্রতিনিধি: কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানের ভাষায় ‘মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা/ অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা।/ রসের আবেশ রাশি/ শুস্ক করে দাও আসি/ মায়ার কুজঝটিকাজাল যাক দূরে যাক, এসো, এসো, এসো, হে বৈশাখ।’ অপ্রাপ্তি ও বেদনাকে ধুয়ে মুছে, আকাশ-বাতাস ও প্রকৃতিকে অগ্নিস্নানে সূচি করে তুলতেই আবার এসেছে বৈশাখ নতুন স্বপ্ন, উদ্যম ও প্রত্যাশার আলোয় রাঙানো নতুন বাংলা বছর স্বাগত ১৪২৪। গত শুক্রবার দিনব্যাপী নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে নবীগঞ্জে পালিত হয়েছে নতুন স্বপ্ন, উদ্যম আর প্রত্যাশার আবির ছড়ানো বাঙালি জাতির সবচেয়ে বড় উৎসব পহেলা বৈশাখ।

বরাবরের মতো ভোরের আলো ফুটতেই নবীগঞ্জে শুরু হয় নতুনকে বরণ করে নেয়ার আয়োজন। সব বয়সের মানুষ এসে জড়ো হয় নবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানস্থলে। সাদা রঙের শাড়ি পরে মাথায় বেলি ফুলের কোপায় রমনীদের আনন্দ অনেকটাই ছিল লক্ষ্যনীয়। শুধু তাই নয় ছেলেরা পায়জামা পাঞ্জাবি পরে মণে করিয়ে দিলো শুক্রবার পহেলা বৈশাখ বাঙ্গালীদের মিলন মেলার দিন। শুধু ছেলে মেয়ে নয় শিশু থেকে শুরু করে প্রাপ্ত বয়স্ক সবাই মগ্ন পহেলা বৈশাখ উদযাপন করতে। অনূষ্ঠানস্থলগুলোতে বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে মানুষের ভিড়। সকাল থেকে শুরু হওয়া অনুষ্টানগুলোতে জুম্মার নামাজের বিরতির পর বন্ধু-বান্ধব একসাথে দলবেধে আসে অনুষ্ঠান উপভোগ করতে।

নববর্ষের আনন্দে মেতে উঠে সব বয়সের নারী পুরুষ। প্রাণের বন্ধনে সবাই একত্র করতে প্রতিটি অনুষ্টানকে নজর কাড়া রুপ দেয়া হয়। সকাল ১০ টায় নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গন থেকে একটি মঙ্গল শোভাযাত্রা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে অনুষ্টানের সূচনা করা হয়। নবীগঞ্জ সদর আদর্শ প্রাইমারী স্কুল মাঠে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে বিভিন্ন অনুষ্টানমালার মধ্য দিয়ে বর্ষবরন পালন করা হয়।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি বিন্দু সুত্রধরের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম সম্পাদক সাহেল আহমদের পরিচালনায় এমপি এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাজিনা সারোয়ার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ জিতেন্দ্র কুমার নাথ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, পৌর মেয়র ছাবির আহমদ চৌধুরী, প্রবাসী কমিউনিটি লিডার ছোটন চৌধুরী, বিশিষ্ট কবি বাদল কৃষ্ণ বনিক,কবি কোকিল দাশ,শিক্ষক আলী আমজাদ মিলন, শিল্পী শামস খেলা, প্যানেল মেয়র ফারজানা আক্তার পারুল,পৌর কাউœিসলর নাসিমা বেগম, প্রভাষক উত্তম কুমার পাল হিমেল, শিল্পী ফজলু মিয়া,শিল্পী আসিফ ইকবাল সুমন, সাংবাদিক সলিল বরন দাশ প্রমুখ। ‘এছাড়া নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মাঠ প্রাঙ্গনে উপজেলা প্রশাসন ও পরিসদের উদ্যোগে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান চলে। এছাড়াও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের নামে জে.কে মডেল হাই স্কুলসহ পৃথক স্থানে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এছাড়াও র‌্যালী, আলোচনা সভা, সংগীত, নৃত্য, কবিতা, আবৃত্তি নাটিকাসহ অন্যান্য পর্ব অনুস্টিত হয়। পরে মনোঞ্জ সাংস্কৃতিক অনুষ্টানে গান পরিবেশন করেন সিলেটসহ বিভিন্ন জেলা থেকে আগত শিল্পীবৃন্দ। অনুষ্টানগুলো পরিদর্শন করেন, স্থানীয় সাংসদ এম এ মুনিম চৌধুরী বাব, সংরক্ষিত আসনের সাংসদ এডভোকেট আমাতুল কিবরিয়া চৌধুরী কেয়া, নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাজিনা সারোয়ার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ জিতেন্দ্র কুমার নাথ, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, থানার তদন্ত ওসি ইকবাল হোসেন, পৌরসভার প্যানেল মেয়র এটিএম সালাম, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সাদেক হোসেন, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুর রাজ্জাক, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক লোকমান খান, নবীগঞ্জ উপজেলা হিন্দু বৌদ্ব্য খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক উত্তম কুমার পাল হিমেল, সলিল বরন দাশ, প্রমুখ।

এদিকে নববর্ষ উদযাপন নির্বিঘ করতে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ। নবীগঞ্জ শহরের বাহিরে বিভিন্ন স্কুল এন্ড কলেজসহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানেও শান্তিপূর্ণভাবে নববর্ষ পালিত হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই