মেইন ম্যেনু

নাইনে স্কুলছুট, ১৬-তে পৌঁছেই দুই কোম্পানির মালিক!

ক্লাস নাইনে প্রথাগত পড়াশুনো ছেড়েছিল সে। এখন বয়স ১৬। আর সদ্য ‘টিনএজ’-এ পৌঁছেই দু’টি কোম্পানির মালিক সে। এই নব্য যুবা মুম্বইয়ের অঙ্গদ দারওয়ানি। ‘হিউম্যানস অফ বম্বে’-র ফেসবুক পাতায় সে এখন বেশ জনপ্রিয়।

“নাইনে পড়তে পড়তে স্কুল ছেড়ে দিয়েছিলাম। আমার বই মুখস্থ করতে ভাল লাগত না। রাতে পড়লে সকালেই ভুলে যেতাম। কিছুতেই বইয়ের পড়া মনে রাখতে পারতাম না” জানিয়েছে অঙ্গদ। ‘গ্রেড সিস্টেম’ না-পসন্দ ছেলের। বরং বাড়িতে বসে নিজের মতো করে পড়াশুনোয় আগ্রহী সে। আর তার নিজের ক্ষেত্রে এ সব সম্ভব হয়েছে বাবা-মায়ের অকুন্ঠ সমর্থনে।

অঙ্গদের কথায়, “স্কুলের শেষের দিকে বাবাকে গিয়ে বলেছিলাম, আমি একটা হোভারক্র্যাফ্ট বানাতে চাই। আর আমার নতুন আইডিয়া সেখানে কাজে লাগাতে চাই। বাবা সম্মতি দিয়েছিল বলেই এটা সম্ভব হয়েছে।” ছোট থেকেই নিজে কিছু করার ইচ্ছে ছিল অঙ্গদের। হয়ত টিভি দেখে নিজের মতো কিছু তৈরি করল, অথবা বাবার অফিসের ইঞ্জিনিয়ারদের নকল করে বানিয়ে ফেলল কোনও খেলনা। এখন তার কোম্পানি এমন কিছু তৈরি করে যার মধ্যে নতুনত্ব তো রয়েইছে, পাশাপাশি তা সাধারণ মানুষের কৌতূহলও তৈরি করবে।

যে কোনও মেশিন নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি তার পুরনো অভ্যেস। খুব কম খরচে থ্রি-ডি প্রিন্টার তৈরির কৃতিত্ব তার ঝুলিতে। আবার দৃষ্টিহীনদের সাহায্যার্থে একটি ভার্চুয়াল ই-রিডারও তৈরি করেছে সে। নয়া জমানায় ‘গ্রেড সিস্টেম’-এর ইঁদুর দৌড়ে নাজেহাল পড়ুয়াদের কাছে অঙ্গদের এই প্রথাবহির্ভূত সাফল্য কি কোনও নতুন পথের সন্ধান দিল?






মন্তব্য চালু নেই