মেইন ম্যেনু

নাবালিকাকে দিনের পর দিন গণধর্ষণ: অতঃপর

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ঘরে আটকে রেখে দিনের পর দিন এক নাবালিকাকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। অভিযুক্তরা সম্পর্কে শ্যালক এবং জামাইবাবু। ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের হবিবপুর থানার জাজৈল গ্রাম প‍ঞ্চায়েতের ভাবুক গ্রামে। অভিযোগ— কোচবিহার জেলার পুণ্ডিবাড়ি এলাকায় নিয়ে গিয়ে ভয় দেখিয়ে একটি ঘরে আটকে রেখে দিনের পর দিন ওই নাবালিকাকে গণধর্ষণ করা হয়।

নাবালিকা কোনওক্রমে সেখান থেকে পালিয়ে এসে সমস্ত কিছু বাড়িতে জানালে হবিবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। মেয়েটিকে অপহরণ ও গনধর্ষণ করার অভিযোগে মোট পাঁচজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মূল অভিযুক্ত শুভময় রায় ও তাঁর ভাই পার্থ রায় এবং এলাকার বাসিন্দা অমর রায়কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়া, অন্য দুই অভিযুক্ত কোচবিহারের পুণ্ডিবাড়ির বাসিন্দা বিশু রায় এখন পলাতক।

মেয়েটি জানিয়েছে, শুভময় ও তাঁর স্ত্রী গৌরী রায় মেয়েটিকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কোচবিহারের পুণ্ডিবাড়ি নিয়ে চলে যায় এবং এই কাজে সাহায্য করে পার্থ ও অমর রায়। সেখানে নিয়ে গিয়ে অন্য কোথাও তাঁকে বিক্রি করে দেওয়ার উদ্দেশ্য ছিল বলে অভিযোগ তুলেছে নাবালিকা মেয়েটি।

সে আরও জানিয়েছে, পুণ্ডিবাড়িতেই অভিযুক্ত শুভময়ের শ্বশুরবাড়িতে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। এরপর তাঁকে সেখানেই একটি ঘরে আটকে রাখা হত। এবং প্রত্যেকদিন তাঁকে শুভময় ও তাঁর শালা বিশু রায় ধর্ষণ করত। কোনও প্রতিবাদ করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হত বলে অভিযোগ। একদিন কোনওক্রমে নির্যাতিতা মেয়েটি সেখান থেকে পালিয়ে আসে বলে দাবি করেছে।

অন্যদিকে, অন্যতম অভিযুক্ত শুভময়ের স্ত্রী গৌরী রায় সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পুরো ঘটনায় তাঁদেরকে ফাঁসানো হচ্ছে। মেয়েটির সাথে তাঁর ভাই বিশু রায় পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে। এবং একমাস ঘর সংসারও করেছে। পুরো ঘটনাটিই সাজানো। সুত্র-এবেলা






মন্তব্য চালু নেই