মেইন ম্যেনু

নামাজ আদায় না করার ভয়াবহ ১৫ শাস্তি!

প্রত্যেক মুসলমান নর-নারীর জন্য মহান আল্লাহ তাআলা নামাজ ফরয করেছেন। কিন্তু যারা আল্লাহর এই হুকুম অমান্য করেন তাদের জন্য রয়েছে ভয়াবহ শাস্তি। যারা নামাজ আদায় করে না তাদের জন্য আল্লাহ্ পাক ১৫টি আজাব নির্দিষ্ট করে রেখেছেন। এসব আজাবের মধ্যে ৬টি দুনিয়ায়, ৩টি মৃত্যুর সময়, ৩টি কবরে দেয়া হয় এবং বাকি ৩টি হাশরে দেয়া হবে। নিচে এ বিষয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হলো।

দুনিয়াতে যে ৬টি আজাব দেয়া হয় : ১. ইসলামের মূল্যবান নেয়ামতসমূহ হতে বঞ্চিত করা হয়। ২. যে যা কিছু নেক কাজ করবে, তার সওয়াব পাবে না। ৩. আল্লাহ পাকের সমস্ত ফেরেশতা তার ওপর অসন্তুষ্ট থাকবে। ৪. আল্লাহ তার চেহারা হতে নেক লোকের চিহ্ন উঠিয়ে নেন। ৫. তার দোয়া আল্লাহ পাকের নিকট কবুল হয় না। ৬. তার জীবনে কোনোরূপ বরকত পাবে না।

মৃত্যুর সময় যে ৩টি আজাব দেয়া হয় : ১. অত্যন্ত দুর্দশাগ্রস্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করবে। ২. ক্ষুধার্ত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করবে। ৩. মৃত্যুকালে তার এত পিপাসা পাবে যে, তার ইচ্ছা হবে দুনিয়ার সমস্ত পানি পান করে নিতে।

কবরে যে ৩টি আজাব দেয়া হয় : ১. তার কবর এমন সংকীর্ণ হবে যে, এক পাশের হাড় অপর পাশের হাড়ের সংগে মিলিত হয়ে চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে যাবে। ২. তার কবরে দিনরাত্রি সবসময় আগুন জ্বালিয়ে রাখা হবে। ৩. আল্লাহ তার কবরে একজন আজাবের ফেরেশতা নিযুক্ত করবেন। তার হাতে লোহার মুগুর থাকবে। সে মৃত ব্যক্তিকে বলতে থাকবে, ‘দুনিয়ায় কেন নামাজ পড় নাই। আজ তার ফল ভোগ কর।’ এই বলে ফজর নামাজ না পড়ার জন্য ফজর হতে জোহর পর্যন্ত, জোহর নামাজের জন্য জোহর থেকে আছর পর্যন্ত, আছরের নামাজের জন্য আছর থেকে মাগরিব পর্যন্ত, মাগরিবের নামাজের জন্য মাগরিব হইতে এশা পর্যন্ত এবং এশার নামাজের জন্য এশা হইতে ফজর পর্যন্ত লোহার মুগুর দ্বারা আঘাত করতে থাকবে। আর বাকি ৩টি শাস্তি দেয়া হবে রোজ হাশরের দিন কিয়ামতের ময়দানে।

আসুন আমরা নিয়মিত পাঁচওয়াক্ত জামাতের সাথে নামাজ আদায় করারার চেষ্টা করি। আর মা বোনেরা সময় মত বাড়িতে নামাজ আদায়ের চেষ্টা করবেন।-প্রিয়.কম

লেখক : ফয়জুল আল আমীন






মন্তব্য চালু নেই