মেইন ম্যেনু

নারকেল তেল-অলিভ অয়েল, কোনটা সবচেয়ে ভালো?

খাবার তেলের মধ্যে স্বাস্থ্যকরের তালিকায় শীর্ষস্থানে রয়েছে অলিভ অয়েল। তবে বিশেষজ্ঞদের কাছে এই তেলের কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠতে পারে নারকেল তেল। তাহলে কোনটা সবচেয়ে ভালো? এ আলোচনায় দেখা হয়েছে সুস্বাদু খাবার পাকাতে কতটা ফ্যাট ব্যবহার করা হয়। এখানে বিশেষজ্ঞরা এই দুটি তেল সম্পর্কে সংক্ষেপে কিছু তথ্য তুলে ধরেছেন।

নারকেল তেল : রান্নাঘরের জন্যে নারকেল তেল বেশ স্বাস্থ্যকর উপাদান। এর বড় সুবিধা হলো, স্মোক পয়েন্ট অনেক বেশি। অর্থাৎ, তেলের অণু ভেঙে গিয়ে ক্ষতিকর উপাদান বেরিয়ে আসার জন্যে অনেক তাপমাত্রা প্রয়োজন। আর এটা হতে রিফাইন্ড নারকেল তেলকে ২০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় গরম করতে হবে। সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, এই তেল দিয়ে নিশ্চিন্তে উচ্চ তাপমাত্রায় রান্না করা যাবে। এতে ক্ষতিকর উপাদান নির্গত হবে না।

অলিভ ওয়েল : ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের খাবারের প্রধানতম উপাদান এটি। খাবারে উপাকারী ফ্যাটের দারুণ উৎস এটি। তবে রান্নার জন্যে অলিভ অয়েল নিয়ে নিশ্চিন্তে থাকা যায় না। কারণ এর উচ্চ তাপে তেলটি কার্যকারিতা হারায়। পলিস্যাটুরেটেড ফ্যাটসমৃদ্ধ তেল উচ্চ তাপে আগের মতো থাকে না। তবে অলিভ অয়েল মনোস্যাটুরেটেড ফ্যাট যা আরো বেশি তাপ নিতে পারে। অলিভ অয়েলে আরো আছে ভিটামিন ই যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্টকে আরো বেশি স্থায়িত্ব দেয়।

মূল্যায়ন : তবে এদের মধ্যে একটি তেলকে সেরা বলতেই হচ্ছে। স্মোক পয়েন্টের বিচারে নারকেল তেল এগিয়ে। তাই বলে অলিভ অয়েল যে খুব কম তাপেই ক্ষতিকর হয়ে ওঠে তা নয়। তবে অন্যান্য ভেজিটেবল তেলের মধ্যে এ দুটোর যেকোনো একটি বেছে নিতে পারে। তা ছাড়া আপনি যে ধরনের খাবার রান্না করে তার ওপর ভিত্তি করে একটি তেলই হয়তো খাপ খায়। তা ছাড়া ব্যক্তিগত রুচির বিষয় আছে। তাই দুটো তেলই পরখ করুন এবং একটি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে থাকুন।






মন্তব্য চালু নেই