মেইন ম্যেনু

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের নতুন মোড়!

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত চাঞ্চল্যকর সেভেন মার্ডারের ঘটনায় নতুন মোড় নিয়েছে। সাত খুনের ঘটনায় দায়ের করা মামলা থেকে অব্যাহতি পাওয়া দুই আওয়ামী লীগ নেতা ঘটনার প্রায় ১৫ মাস পর পাল্টা মামলার আবেদন করেছে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াছিন মিয়া ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আমিনুল হক রাজুর দায়ের করা পৃথক তিন মামলায় বিবাদী করা হয়েছে সাত খুনে নিহত কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের ভাই আবদুস সালাম, শ্বশুর শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদ চেয়ারম্যানসহ বেশ কয়েকজনকে।

বিবাদীদের হুমকিতে পলাতক থাকার কারণে মামলা করতে বিলম্ব হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে দায়ের করা মামলার আবেদনে।

গত ২৮ জুলাই নারায়ণগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পৃথকভাবে এ তিনটি মামলার আবেদন করা হয়। বৃহস্পতিবার ৩০ জুলাই বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মহসিন মিয়া বিষয়টি সাংবাদিকদের অবহিত করেন।

আদালত ওই তিনটি মামলার আবেদন গ্রহণ করে আগামী ৩০ আগস্টের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দিয়েছেন।

আদালতে দায়ের করা হাজী ইয়াছিন মিয়ার একটি মামলায় বিবাদী করা হয়েছে নিহত নজরুলের শ্বশুর শহীদুল ইসলামকে। অন্য নামভুক্ত আসামিরা হলেন- নজরুলের ভাই আবদুস সালাম, সাইদুল, মামুন, রফিকুল ইসলাম মিন্টু, রনি।

মামলার আবেদনে হাজী ইয়াছিন মিয়া অভিযোগ করেন, ‘২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল নজরুল ইসলামসহ সাতজনকে অপহরণের পরেই বিবাদীরা গিয়ে ইয়াছিনের কাছে এক কোটি টাকা চাঁদা দাবি করে। অন্যথায় সাত খুনের মামলায় আসামি করার হুমকি দেয়। কিন্তু টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় ২৮ এপ্রিল ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করে ইয়াছিনকে দ্বিতীয় আসামি করা হয়। পরে বিবাদীরা ৩০ এপ্রিল সিদ্ধিরগঞ্জের মৌচাকে মেসার্স সামস ফিলিং স্টেশনে হামলা করে ২০ লাখ টাকা লুট সহ ৫০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে। এর পর থেকে এলাকাতে ত্রাসের রাজস্ব কায়েম করে।

হাজী ইয়াছিন মিয়ার অপর মামলার আসামিরা হলেন- আবদুস সালাম, রফিকুল ইসলাম মিন্টু, মামুন, সাইদুল, রনি, কবির হোসেন, বাবুল মিয়া, মোহাম্মদ আলী, জহিরুল ইসলাম। ওই মামলায় অভিযোগ করা হয়, ২০১৪ সালের ১ মে আসামিরা ইয়াসিনের বাড়িতে হামলা করে বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা ছবি ভাঙচুরসহ ১০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়।

তৃতীয় মামলার বাদী সিদ্ধিরগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আমিনুল হক ভূইয়া রাজু। এ মামলার বিবাদীরা হলেন- শহীদুল ইসলাম, আবদুস সালাম, রফিকুল ইসলাম মিন্টু, মামুন, সাইদুল, রনি, কবির হোসেন, বাবুল মিয়া, মোহাম্মদ আলী, জহিরুল ইসলাম, মনির হোসেন সহ ২০-২৫ জন। মামলায় অভিযোগ করা হয় বিবাদীরা মিলে ২০১৪ সালের ১ মে রাজুর বাড়িতে হামলা করে সাড়ে ৩ লাখ টাকা লুটপাট করে।






মন্তব্য চালু নেই