মেইন ম্যেনু

নারীদের মাঝে অবহেলিত ক্যান্সারের ১০ লক্ষণ

‘ক্যান্সার’- মরণঘ্যাতি এই রোগটি বেশি হয়ে থাকে মহিলাদের। ক্যান্সারের খুব সাধারন কিছু লক্ষণ আছে যা মহিলার অবহেলা করে থাকেন। শুরুতে অবহেলার কারণে পরবর্তীতে এই ক্যান্সার মারাত্নকরূপ ধারণ করে থাকে। mdanderson.org মতে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি বছর ৮০,০০০ হাজারের বেশি মহিলারা গাইনোকোলোজি ক্যান্সারের আক্রান্ত হয়ে থাকে। তাই ক্যান্সারের লক্ষণের বিষয়ে মহিলাদের অতিরিক্ত সচেতন হতে হয়। “যদি আপনি আপনার শরীরের অস্বাভাবিক কোন পরিবর্তন লক্ষ্য করেন, তবে তা অবহেলা করবেন না।

১। অস্বাভাবিক রক্তক্ষরণ

৯০ ভাগের বেশি মহিলাদের অস্বাভাবিক রক্তক্ষরণ প্রথম ও প্রধান লক্ষণ হিসেবে দেখা দেয় এন্ডমেট্রিয়াল ক্যান্সারের। মেনোপজের পর হঠাৎরক্তপাত, বা অস্বাভাবিক রক্তপাত বা অনিয়মিত রক্তপাত দেখা দিলে দেরি না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

২। হঠাৎ ওজন কমে যাওয়া

কোন প্রকার ডায়েট বা ব্যায়াম ছাড়া হঠাৎ করে ওজন কমে গেলে একে হালকা ভাবে নিবেন না। কিংবা খুশি হয়ে যাবেন না। কোন কারণ ছাড়া ওজন কমে যাওয়া ভাল কোন লক্ষণ নয়। mdanderson.org মনে করে হঠাৎ কোন কারণ ছাড়া ১০ পাউন্ডের বেশি ওজন কমে গেলে অব্যশই চিকিৎ্সকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

৩। স্তনের অস্বাভাবিক পরিবর্তন

স্তনে অস্বাভাবিক যেকোন পরিবর্তন। তা স্তনের আকার পরিবর্তন, স্তনের চামড়ার রং পরিবর্তন, স্তনে চুলকানি, লাল লাল হয়ে যাওয়া বা স্তনবৃন্তে পরিবর্তন কিংবা সংবেদনশীলতা অথবা স্তনে ব্যথা এর যে কোন একটি লক্ষণ দেখা দিলে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

৪। আঁচিল বা তিলের পরিবর্তন

বেশিরভাগ আঁচিল বা তিল নিরাপদ হয়ে থাকে। কিন্তু কোন তিল বা আঁচিলের আকার, রং এক সপ্তাহ বা মাসের মধ্যে পরিবর্তিত হয়, তবে অব্যশই চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। এটি স্কিন ক্যান্সারের একটি লক্ষণ, তাই একে অবহেলা করা যাবে না কোনভাবে।

৫। দীর্ঘসময় ক্লান্তিবোধ করা

পরিশ্রমে মানুষ ক্লান্ত হবে এটাই স্বাভাবিক। বিশ্রাম নিলে সেই ক্লান্তিবোধ দূর হয়ে যাবে। কিন্তু এই ক্লান্তিবোধটি যদি অনেক সময় ধরে থাকে বা অল্প কাজ করে ক্লান্তিবোধ করেন তবে তা চিন্তার বিষয় হয়। এটিও ক্যান্সারের আরেকটি লক্ষণ।

৬। খাবারে অরুচি

ক্ষুধা কমে যাওয়া বা খাবারের অরুচি ওভারিয়ান ক্যান্সারের একটি লক্ষণ। ওভারিন ক্যান্সারে শরীরের মেটাবলিজম প্রক্রিয়ায় প্রভাব পড়ে। যার কারণে আপনি যে খাবার খান তা আর হজম হয় না। আর যার কারণে খাবারে অরুচি হয় বা পেট ভরা অনুভব হয়ে থাকে।

৭। কাশি

কফ বা কাশি সাধারণত ঠান্ডা কাশির লক্ষণ হলেও ৩ সপ্তাহের বেশি যদি তা স্থায়ী হয় তবে তা চিন্তার বিষয়। “যদি কফের সাথে রক্ত দেখা দেয়, তবে দেরি না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত” Dr Knight webmd.boots.com এ তাই বলেছেন। এটি মূলত ল্যান্স ক্যান্সারের একটি লক্ষণ। যদি আপনার ধূমপানের অভ্যাস থাকে বা ল্যান্সের কোন সমস্যায় ভুগে থাকেন ,তবে এই লক্ষণ দেখার সাথে সাথে অব্যশই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

৮। পেট ফুলে যাওয়া

ওভারিয়ান ক্যান্সারের হঠাৎ করে পেট ফুলে যেতে পারে। আপনার এই পেট ফুলা যদি দুই সপ্তাহ ধরে স্থায়ী হয় কিংবা ঋতুস্রাবের শেষে প্রাউ পেট ফুলে থাকে তবে অতিসত্ত্বর চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

৯। পায়খানার সাথে রক্ত যাওয়া

পায়খানার সাথে রক্ত যাওয়া কোলন ক্যান্সারের অন্যতম লক্ষণ। পঞ্চাশের বেশি বয়স্কদের এই সমস্যাটা বেশি দেখা যায়। তবে হ্যাঁ অর্শ্বরোগ বা কোষ্ঠকাঠিনের কারণে যদি রক্তপাত হয় তবে আলদা কথা। হঠাৎ পায়খানার অভ্যাস পরিবর্তন হয়ে যাওয়া মানে অনিয়মিত পায়খানা কিংবা পায়খানা বন্ধ হয়ে যাওয়া আবার হঠাৎ শুরু হওয়া। এই লক্ষণগুলোর কোনটাই অবহেলা করা উচিত নয়।

১০। বার বার বাথরুমে যাওয়া

আপনি যদি হঠাৎ করে ব্লাডারে প্রেসার পড়ে বা বার বার বাথরুমে যাওয়ার প্রয়োজন হয় কোন কারণ ছাড়া, তবে তা কখনোই অবহেলা করবেন না। অতিরিক্ত পানি পান বা গর্ভধারণ করা ছাড়া এই লক্ষণ দেখা দিলে অতি দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই