মেইন ম্যেনু

নারীদের শোপিস বলায় এবার বেকায়দায় এরশাদ

নারীদের ‘শোপিস’ হিসেবে আখ্যা দিয়ে মন্তব্য করায় সংসদে নারী এমপিদের ক্ষোভের মুখে পড়লেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

সোমবার সকালে দশম জাতীয় সংসদের ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট সাধারণ আলোচনায় আপত্তিকর মন্তব্য করেন এরশাদ। এসময় অধিবেশন কক্ষে উপস্থিত ছিলেন সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ।স্পিকার ড. শিরীন শারমিনের সভাপতিত্বে বেলা ১১টায় অধিবেশন শুরু হয়।

এরশাদ বলেন, বাইরে থেকে যতই বলা হোক বাংলাদেশে নারীরা স্বাধীন। কিন্তু বাইরে নারীরা শোপিস, তারা অসহায়।এ কারণে ২১ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে নারীরা শহীদ মিনারে যায় না।

বিরোধী দলীয় এই নেতার এমন বক্তব্যের সময় অধিবেশন কক্ষে উপস্থিত সরকারদলীয় ও বিরোধী দলীয় নারী সংসদ সদস্যরা হৈ চৈ শুরু করেন। নারী এমপিরা সমস্বরে এরশাদকে এই বক্তব্য প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য শোরগোল করেন এবং টেবিল চাপড়াতে থাকেন।

এসময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী নারী এমপিদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘মাননীয় সংসদ সদস্যরা একটু নীরবতা পালন করুন। মাননীয় সাংসদকে বক্তব্য দিতে দিন।’

এরপর হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, নারীরা মধ্যরাতে যেতে ভয় পায় কেন, আপনারা সবাই জানেন, সেটা নিরাপত্তা। এবার পয়লা বৈশাখে টিএসসিতে কি ঘটেছিল, কি হয়েছে, তা আমরা সবাই জানি।

এরপর তিনি সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করে রাজধানীর যানজট প্রসঙ্গে বলেন, এর একমাত্র উপায় প্রাদেশিক সরকার গঠন করা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর পর আপনার নাম দেশের ইতিহাসে লেখা থাকবে।আপনি প্রাদেশিক সরকার করুন।আমরা যানজটমুক্ত সুন্দর ঢাকা পাব, একটা রাজধানী পাব।

তার বক্তব্য শেষে স্পিকার বলেন, মাননীয় সাংসদ বাজেট অধিবেশনের সাধারণ আলোচনায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে যে অসংসদীয় বক্তব্য রেখেছেন তা সংসদীয় ৩০৭ বিধি অনুসারে কার্যক্রম থেকে ‘এক্সপাঞ্জ’ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই