মেইন ম্যেনু

নারী ও পুরুষের সম্পর্ক কি ‘শুধু বন্ধুত্বের’ হয়?

পুরুষ ও নারীর সম্পর্ক কি শুধু বন্ধুত্বে সীমাবদ্ধ থাকে? বেশির ভাগ গবেষণায় দেখা যায়, বিপরীত লিঙ্গের কারো সঙ্গে দীর্ঘ সময় শুধু বন্ধুরূপে থাকা সম্ভব হয় না। যদি বিপরীত লিঙ্গের কারো সঙ্গে ভালো বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে, ধীরে ধীরে তা ভালোবাসায় পরিণত হয়।

সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের মতে, পুরুষ ও নারীর মধ্যে শুধু বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিদ্যমান থাকে এমন ঘটনা খুব বিরল। তবে যদি অনেক বন্ধুরা মিলে দল বেঁধে থাকে, যেখানে সবাই মিলে সিনেমা দেখতে যাওয়া, খাওয়া, ঘুরতে যাওয়া হয় সেই ক্ষেত্রে বিষয়টা ভিন্ন। কারণ তখন আপনার মন বন্ধুদের সেই ভিড়ের মাঝেই আবদ্ধ থাকে। লাইফস্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ে পুরুষ ও নারীর সম্পর্কের কিছু দিক তুলে ধরা হয়েছে। চলুন দেখে নিই দিকগুলো।

১. বেশির ভাগ নারী পুরুষদের শুধু ‘বন্ধু’ ভাবতে পারে। অপরদিকে পুরুষরা বেশির ভাগ সময় নারী বন্ধুটির প্রেমে পড়ে যায়।

২. অনেক পুরুষ গোপনে নারী সঙ্গীকে ভালোবেসে ফেলে। এমনকি অনেক ক্ষেত্রে শারীরিক সম্পর্কে জড়ানোর কথাও ভেবে থাকে।

৩. কিছু গবেষণায় দেখা গেছে পুরুষ ও নারীর বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বেশ লাভজনক। কারণ একজন নারীকে তার আরেক নারী বন্ধুর চেয়ে পুরুষ সঙ্গী ভালো বুঝতে পারে। নারীরাও তাদের নানা কথা পুরুষ বন্ধুদের সঙ্গে আলোচনা করতে তৃপ্তি অনুভব করে।

৪. হ্যাঁ, পুরুষ ও নারী শুধু বন্ধু হতে পারে। কিন্তু মাঝে মাঝে শুধু বন্ধু হয়ে থাকা কঠিন হয়ে পড়ে যখন দুজনের মধ্যে একজন অনেক আকর্ষণীয় হয়।

৫. অনেক গবেষণায় এসেছে নারী-পুরুষের সম্পর্ক বন্ধুত্ব দিয়েই শুরু হয় এবং একপর্যায়ে তা ভালোবাসায় পরিণত হয়।

৬. পুরুষ সঙ্গী আপনাকে শুধু ভালো বন্ধুই মনে করে নাকি এর চেয়ে বেশি কিছু তা জানার সবচেয়ে সহজ উপায় হলো আপনার প্রতি তার আচরণ কেমন?

৭. যদি কোনো মানুষ নিজের ভালোবাসার অনুভূতি প্রকাশের চেষ্টা বারবার করে, আপনার সঙ্গে ঘনঘন দেখা করতে যায়, আপনাকে প্রেমময় বার্তা দেয় তাহলে বুঝতে হবে সে বন্ধুত্বের বাইরেও কিছু ভাবছে আপনাকে নিয়ে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই