মেইন ম্যেনু

‘নাশকতার পরিকল্পনা চলছিল নিজামীর স্ত্রীর স্কুলে’

রাজধানীর মেরুল বাড্ডার একটি স্কুল থেকে যে ১৮ জনকে জঙ্গি সন্দেহে আটক করা হয়েছে তারা সবাই জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মী। আটকরা সেখানে নাশকতার পরিকল্পনা করার জন্য একত্রিত হয়েছিল বলে দাবি পুলিশের।

বাড্ডা থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. নওশাদ বিকেলে বলেন, ১৮ জনই এখনও থানায় রয়েছেন। তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। যাচাই বাছাই শেষে মামলা করে আদালতে পাঠানো হবে। তখন বিস্তারিত জানা যাবে।

স্কুলটির মালিক ও অধ্যক্ষ মানববতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসি কার্যকর হওয়া জামায়াতে ইসলামীর আমীর মতিউর রহমান নিজামীর স্ত্রী শামসুন্নাহার নিজামী। তিনি জামায়াতের মহিলা বিভাগের সাধারণ সম্পাদক। তবে অভিযানের সময় শামসুন্নাহার নিজামী ওই স্কুলে ছিলেন না।

বাড্ডা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম এ জলিল বলেন, নাশকতার পরিকল্পনাকালে ইসলামিক ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে শুক্রবার সকালে আটক ১৮ জনের মধ্যে বাড্ডা থানা জামায়াতের আমির ফখরুদ্দিন মো. কেফায়েতুল্লাহও রয়েছেন। তিনি ঐ স্কুলের উপাধ্যক্ষ। নিজামীর স্ত্রী স্কুলের অধ্যক্ষ হলেও মূলত কেফায়েতুল্লাহ এই শাখাটি চালাতেন। স্কুলটির দুটি শাখা রয়েছে। দুটিরই অধ্যক্ষ শামসুন্নাহার নিজামী। প্রধান ক্যাম্পাস গুলশানে।

এক প্রশ্নের জবাবে ওসি জানান, অভিযানের সময় নিজামীর স্ত্রী ছিলেন না। যতদুর জানা গেছে নাশকতার পরিকল্পনাকালেও তিনি সেখানে ছিলেন না।

যেহেতু স্কুলটি চালাতেন বাড্ডা থানা জামায়াতের আমির ও স্কুলের উপাধ্যক্ষ ফখরুদ্দিন মো. কেফায়েতুল্লাহ। তাই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে ও তার পরিবারের অন্য সদস্যদেরও আটক করা হয়েছে। বাড়ির মালিক বিল্লাল হোসেনসহ মোট ১৮ জনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ছয় তলা ভবনে অবস্থিত স্কুলটিতে প্লে গ্রুপ থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানো হয়। পরিবার নিয়ে তিন তলায় বাড়ির মালিক ও ছয় তলার চিলেকোঠায় থাকতেন উপাধ্যক্ষ কেফায়েতুল্লাহ।

স্থানীয় বাসিন্দা রফিকুল আলম বলেন, প্রায় তিন বছর আগে স্কুলটি এখানে প্রতিষ্ঠা করা হয়। কখনও কোনো সমস্যা দেখিনি। আজ (শুক্রবার) সকালে বিপুলসংখ্যক পুলিশ এসে বাড়িটি ঘিরে ফেলে। তারপর সাড়ে ১০ টার দিকে বাড়ির মালিক বিল্লাল হোসেন ও কয়েকজন নারীসহ ১০/১২ জনকে ওই ভবন থেকে পুলিশ নিয়ে যায়।

শুক্রবার সকালে ডিআইটি প্রজেক্টের ৮ নম্বর সড়কের ২৫ নম্বর বাড়িতে অবস্থিত ওই স্কুলে গোপন বৈঠক করার সংবাদ পেয়ে ১৮ জনকে আটক করে পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই