মেইন ম্যেনু

নিখোঁজ মানেই জঙ্গি সম্পৃক্ততা নয়: ডিএমপি কমিশনার

হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর যেসব তরুণ নিখোঁজ হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে তাদের সবাই জঙ্গি তৎপরতায় জড়িত বলে মনে করেন না ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

শনিবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন পুলিশ কমিশনার। বলেন, হলি আর্টিজানে হামলার পর নিখোঁজ তরুণদের বিষয়ে খোঁজ খবর নিতে কেবল ঢাকা নয়, নির্দেশ দেয়া হয়েছে গোটা দেশের পুলিশ বাহিনীকে। তবে এখন পর্যন্ত কত তরুণ নিখোঁজ হয়েছে, সে বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ তথ্য দিতে পারেননি ডিএমপি কমিশনার।

গত ১ জুলাই গুলশানের অভিজাত রেস্টুরেন্ট হলি আর্টিজানে হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জনকে হত্যায় জড়িত পাঁচ তরুণই দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন। পরিবারকে কিছু না জানিয়ে উধাও হয়ে যাওয়ার পর কারও কারও বিদেশে যাওয়ার তথ্যও পাওয়া যায়।

ওই হামলার পর জানা যায়, এমন আরও বেশ কিছু তরুণ নিখোঁজ রয়েছে, যাদের মধ্যে একটি বড় অংশই উচ্চবিত্ত পরিবারের ইংরেজি মাধ্যম পড়ুয়া বা বেসরকারি চাকুরে।

এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এ রকম নিখোঁজদের বিষয়ে তথ্য দেয়ার আহ্বায় জানায়। এর মধ্যেই দেশের বাইরে থেকে তিন ‘জিহাদি’ তরুণের একটি ভিডিও প্রকাশ হয়, যাতে তারা গণতন্ত্রকে ইসলামবিরোধী আখ্যা দিয়ে আর্টিজান হামলার প্রশংসা করা হয়। বলা হয়, এ রকম গুলশানের হামলা কেবল শুরু, এ রকম বার বার হতে থাকবে এবং সরকার তা ঠেকাতে পারবে না।

পরে জানা যায়, এই তিন তরুণের মধ্যে দুইজন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি মাধ্যম পড়ুয়া এবং তারাও পরিবারকে কিছু না জানিয়ে উধাও হয়ে বিদেশে পারি জমায়।

এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় ঈদের জামাতের এক কিলোমিটার দূরে পুলিশের তল্লাশি চৌকিতে হামলা হয়। দুই পুলিশকে হত্যা এবং নয়জনকে আহত করার পর পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারায় হামলাকারীদের একজন আবীর রহমান। গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর ধরা পড়েন আরেক হামলাকারী শরিফুল ইসলাম ওরফে শফিউল ইসলাম ওরফে আবুদ মুকাদ্দেল।

এই দুই জনের একজন ঢাকায় উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তান। তিনি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথের বিবিএর ছাত্র। গত মার্চ থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি। আর শরিফুল ইসলামের বাড়ি দিনাজপুরে। তিনি নিখোঁজ ছিলেন আড়াই বছর ধরে।

এরই মধ্যে ১০ তরুণকে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়ে গণমাধ্যমে তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হচ্ছে। পরে জানা যায়, নিখোঁজদের মধ্যে তিনজনের পরিবারের অন্য সদস্যদেরও হদিস পাওয়া যাচ্ছে না।

ঢাকার পুলিশ কমিশনার বলেন, হামলায় জড়িত তরুণরা নানা সময় নিজের ইচ্ছেয় ঘর ছেড়েছে। তবে তার মানে এই নয় যে, যাদের অবস্থান সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না তাদের সবাই জঙ্গি তৎপরতায় জড়িত। তিনি বলেন, ‘কেউ রাগ করে বাড়ি ছাড়তে পারে, কেউ অপহরণ হতে পারে, কারও সঙ্গে হয়ত অন্য কোনও কারণে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না’।

এরই মধ্যে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিখোঁজ শিক্ষার্থীদের বিষয়ে তথ্য দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কেউ ১০ দিন টানা অনুপস্থিত থাকলেই জানাতে বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী। ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয় একটি উদ্যোগ নিয়েছে, আমরাও একটি উদ্যোগ নিয়েছি। স্থানীয় পুলিশকে বলা হয়েছে কোথাও কারও নিখোঁজ হওয়ার খবর পেলেই তারা যেন তার বিষয়ে খোঁজ খবর করে’। কোনও এলাকায় কেউ সন্দেহভাজন কেউ থাকলে পুলিশকে তথ্য দেয়ার আহ্বানও জানান তিনি।

ব্রিফিংয়ে গুলশানের হলি আর্টিজানে হামলা নিয়েও কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার। তবে এই মামলার তদন্ত নিয়ে বিস্তারিত কিছু বলতে রাজি হননি তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে, তবে তদন্তের স্বার্থে আপাতত কিছু বলা হচ্ছে না’।

রাজধানীতে পুলিশের তল্লাশিতে সহযোগিতা করতে নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান পুলিশ কমিশনার। বলেন, নগরবাসীর নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থেই কিছুটা ছাড় দিতে হবে। কেবল জঙ্গি তৎপরতায় জড়িতরা নয়, জঙ্গিবাদে যারা উস্কানি দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দেন আছাদুজ্জামান মিয়া।

গুলশান হত্যাকাণ্ডের সময় বনানী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সালাহউদ্দিন সম্পর্কে গণস্বাস্থ্যের মহাপরিচালক ড. জাফরুল্লাহর মন্তব্যের ব্যাপারে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, তার বক্তব্যে উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত। এজন্য প্রচলিত আইনে তার বিচার করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই