মেইন ম্যেনু

নিজামীর ফাঁসির সময় যারা উপস্থিত থাকবেন

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডাদেশ পাওয়া জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি যে কোনো সময়ই কার্যকর হতে পারে। কারা সূত্র জানিয়েছে, ফাঁসি কার্যকরের সময় ফাঁসির মঞ্চের পাশে উপস্থিত থাকবেন, সিভিল সার্জন আব্দুল মালেক মৃধা, ঢাকা জেলা প্রশাসক মো. সালাউদ্দিন, পুলিশের লালবাগ বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মফিজ উদ্দিন আহমেদ, ঢাকা মহানগরের একজন ম্যাজিস্ট্রেট, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবীর।

এছাড়াও মঞ্চের পাশে উপস্থিত থাকবেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) একজন প্রতিনিধি ও র্যাবের একজন প্রতিনিধি। থাকবেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার ও দুজন ডেপুটি জেলার। মঞ্চের চারদিকে ঘিরে থাকবেন কারারক্ষীরা। থাকবেন একজন প্রধান জল্লাদ ও সহযোগী জল্লাদরা। ফাঁসি কার্যকরের পর নিজামীর মৃত ঘোষণা করবেন সিভিল সার্জন।

কারা সূত্র জানিয়েছে, ফাঁসি কার্যকরের ক্ষেত্রে আর মাত্র একটি ধাপ বাকি। ম্যাজিস্ট্রেট এসে জানতে চাইবেন নিজামী রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইবেন কি না। ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি জানালে সে বার্তা রাষ্ট্রপতির কাছে পৌঁছানো হবে। এক্ষেত্রে শর্ত থাকে যে, সব অপরাধ স্বীকার করে নিজামীকে নিশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে। তবে ক্ষমা করা বা না করার বিয়ষটি রাষ্ট্রপতির উপর নির্ভর করছে।

সোমবার রাতেই মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর সাজা পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন খারিজের রায় পড়ে শোনানো হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ফাঁসির প্রস্তুতি নিয়ে বৈঠক করেছেন কারা কর্তৃপক্ষ। কেন্দ্রীয় কারাগার সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অন্যদিকে মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের জন্য কাশিমপুর কারাগার থেকে আনা হয়েছে জল্লাদ রাজুকে। এবার আট সদস্যের জল্লাদের নেতৃত্বে থাকছেন। যদিও এর আগে জল্লাদ শাহজাহান বেশ কয়েকটি ফাঁসিতে নেতৃত্বে দিয়েছেন। ইতোমধ্যে রাজুকে কাশিমপুর কারাগার থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে আসা হয়েছে।

কারা সূত্র জানিয়েছে, এবার নিজামীর ফাঁসির রায় কার্যকর করতেই রাজুর হাতে দায়িত্ব বর্তাচ্ছে। রাজুসহ মোট আটজন জল্লাদকে প্রস্তুত করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে সকালে বৈঠক করেছেন কারা কর্তৃপক্ষ। বিকেলে কারা মহাপরিদর্শকের কার্যালয়েও আরেক দফর বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডাদেশ পাওয়া জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর আপিলের চূড়ান্ত রায়েও ফাঁসি বহাল রাখে সর্বোচ্চ আদালত।

গত বুধবার সকালে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন- বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।






মন্তব্য চালু নেই