মেইন ম্যেনু

নিজেকে স্লিম দেখাতে পরতে পারেন যে পোশাক

স্লিম ও ট্রিম থাকতে কে না পছন্দ করে। নারীরা একটু বেশিই এদিকটায় নজড় দেন। জামাকাপড় পরার পর যদি মোটা দেখায়, তা একেবারেই কাম্য নয়। বিশেষ করে যদি পেটের মেদ ড্রেসের উপর দিয়ে উঁকি মারে! জামাকাপড়ের ধরন অনুযায়ী অনেক সময় মোটা ও পাতলা দেখায়। সেইমতো বেছে নিতে হবে জামাকাপড়। স্লিম লুক পেতে, নিয়মিত ডায়েটকে বাই বাই করুন এবং আপনার ফ্যাশনে যোগ করুন কয়েকটি টিপস –

১. V-নেক ড্রেস: বডি শেপ যাই হোক না কেন, V-নেক ড্রেসে প্রত্যেক মেয়েকে ভালো মানায়। মোটা দেখার হাত থেকে বাঁচতে বেছে নিতে পারেন V-নেক ড্রেস।

২. প্রিন্টেড টপ: শরীরের গড়ন ভারী হলে টপ পরতে একটু ইতঃস্তত বোধ হয়। এমনটা হলে বেছে নিন প্রিন্টেড টপ। আপনাকে শুধু সুন্দরী নয়, স্লিমও দেখাবে।

৩. টিউনিক টপ: লম্বা টিউনিক টপ ঢেকে দিতে পারে শরীরের মোটাভাব।

৪. কোট: অনেক সময় মনের মতো টাপ পরার পর নিজেকে মোটা লাগে। টপের উপর দিয়ে গলিয়ে নিতে পারেন হালকা কোনও টপ। শরীরের কাঠামো তাতে সুন্দর দেখাবে।

৫. জ্যাকেট: মেয়েদের ফিগার সুন্দর দেখানোর অন্যতম পোশাক ব্লেট দেওয়া জ্যাকেট। লম্বা বা ছোটো লেন্থের জ্যাকাটে বেশ স্লিম দেখাবে।

৬. স্কার্ফ: পেট দিনকে দিন সামনের দিকে ঝুঁকে আসছে। পশ্চাৎ অংশও বেশ স্ফিত। এমন হলে একটি স্কার্ফ আপনার লুকসকে বদলে দিতে পারে। মনেরমতো একটি স্কার্ফ জড়িয়ে নিলে ঢাকা পড়ে যাবে ভারী গড়ন।

৭. স্লিমলাইন ট্রাউজ়ার: স্লিম লুকস্ পেতে বেছে নিতে পারেন স্লিমলাইন ট্রাউজ়ার। কিন্তু ট্রাউজ়ারে বাড়তি পকেট ও বোতাম এড়িয়ে চলাই ভালো।

৮. ফিট ও ফ্লেয়ার ড্রেস: সকলের চোখে নিজের ভারী গড়ন এড়াতে চান? বেছে নিতে পারেন সুন্দর কারুকার্যের ড্রেস। ড্রেসটি একদম ফিট হলেও ডিজ়াইনে ঢাকা পড়ে যাবে ভারী গড়ন। বেশ স্লিম দেখাবে।






মন্তব্য চালু নেই