মেইন ম্যেনু

নিজেদের ‘সমকামি’ ঘোষণা করেছেন যে তারকারা…

একটা সময় ছিল যখন কেউ নিজের সমকামিতার বিষয়টি প্রকাশ করতে দ্বিধা বোধ করতেন সকলে। কিন্তু সময় বদলেছে। একে একে অনেক তারকাই শেষ পর্যন্ত নিজেকে সমকামী বলে ঘোষণা করেছেন। যদিও সমকামিতা আইনত বৈধ অনেক দেশেই, তবু আজও প্রশ্নবিদ্ধ সমকামি মানুষেরা। অবশ্য সমাজের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করেই নিজেকে সমকামি বলে ঘোষনা দিয়েছেন অনেক তারকাই-

এল্টন জন: ২০১৪ সালে ইংল্যান্ডে সমকামী বিয়ে বৈধ হওয়ার পর ঐ বছরের ডিসেম্বরে নিজের ‘সিভিল পার্টনার’ চলচ্চিত্র নির্মাতা ডেভিড ফার্নিশকে বিয়ে করেন ‘ক্যান্ডেল ইন দ্য উইন্ড’ খ্যাত স্যার এল্টন জন। ১৯৭৬ সালে নিজেকে উভকামী (বাইসেক্সুয়াল) হিসেবে ঘোষণা করেন তিনি। এরপর ১৯৮৮ সাল থেকে সমকামী হিসেবে জীবনযাপন করছেন। সমলিঙ্গ বিয়ে ও এলজিবিটি সম্প্রদায়ের অধিকার নিয়ে বেশ সোচ্চার এল্টন জন।

জোডি ফস্টার: ১৯৭৬ সালে ‘ট্যাক্সি ড্রাইভার’ ছবিতে শিশু পতিতা চরিত্রে অভিনয় করে হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন মার্কিন অভিনেত্রী জোডি ফস্টার। তার মনোযোগ আকর্ষণ করতে এক তরুণের তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্টকে হত্যার চেষ্টার কথাও অনেকেই জানেন। সেই ফস্টার ২০১৩ সালের গোল্ডেন গ্লোব অনুষ্ঠানে তার সমকামী হওয়ার বিষয়টি প্রকাশ করেন। আলেকজান্দ্রা হেডিসনকে বিয়ে করে সুখে সংসার করছেন তিনি।

জর্জ মাইকেল: ‘কেয়ারলেস হুইসপার’ কে শোনেননি! ২০০৪ সালে এক সাক্ষাৎকারে জর্জ মাইকেল বলেন, ‘আশির দশকে অনেক মেয়ের সঙ্গে আমার যৌন সম্পর্ক ছিল। কিন্তু কখনও মনে হয়নি এটা কোনো সম্পর্কে গড়াতে পারে, কারণ আমি জানতাম আমি একজন সমকামী। আমি তাদের সঙ্গে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতাম না। যদিও আমি তাদের প্রতি আকৃষ্ট ছিলাম। তারপর আমার নিজের কাছেই লজ্জা লাগলো, মনে হলো আমি মনে হয় তাদের ব্যবহার করছি।’ ২০১১ সাল থেকে কেনি গসের সঙ্গেই ঘর বেঁধেছেন গায়ক।

এলেন ডিজেনারেস: ২০১৪ সালের অস্কার অনুষ্ঠানে তোলা এই সেল্ফির কথা নিশ্চয় অনেকের মনে আছে। ছবিটি তুলেছিলেন অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা এলেন ডিজেনারেস (সাদা পোশাক পরিহিত)। ১৯৯৭ সালে নিজেকে সমকামী বলে ঘোষণা করেন জনপ্রিয় এই মার্কিন কমেডিয়ান, টেলিভিশন উপস্থাপিকা ও অভিনেত্রী। ২০০৮ সালে ক্যালিফোর্নিয়ায় সমলিঙ্গের বিয়ে বৈধ হওয়ার পর ঐ বছরই এলেন বিয়ে করেন তার সঙ্গী অভিনেত্রী ও মডেল পোর্শিয়া ডি রোসিকে।

রিকি মার্টিন: ২০১০ সালে নিজের ওয়েবসাইটে ‘লিভিন’ লা ভিডা লোকা’ গায়ক রিকি মার্টিন জানান, ‘আমি এটা বলতে গর্ববোধ করছি যে, আমি একজন সৌভাগ্যবান সমকামী।’ অবশ্য তার ১০ বছর আগে তিনি তার এই পরিচয় দিতে অস্বীকার করেছিলেন। পরবর্তীতে ‘ল্যারি কিং লাইভ’ অনুষ্ঠানে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে অস্বীকারের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি যদি আগে জানতাম যে নিজের পরিচয় প্রকাশের পর কতটা ভালো লাগে, তাহলে সেটা আমি আরও আগেই করতাম।’

সিন্থিয়া নিক্সন: ‘সেক্স অ্যান্ড দ্য সিটি’ খ্যাত অভিনেত্রী সিন্থিয়া নিক্সন ২০১০ সালে তার সমকামী হওয়ার কথাটি সবাইকে জানান। অবশ্য তিনি প্রথমে ‘গে বাই চয়েস’, অর্থাৎ ‘ইচ্ছে করে সমকামী’ কথাটি বলে বিতর্ক উসকে দিয়েছিলেন। পরে তিনি এর ব্যাখ্যা দেন এভাবে, ‘আমি বিশ্বাস করি উভকামিতা বিষয়টি বাস্তবতা, এখানে বাছাবাছির সুযোগ নেই। তবে আমি সমকামী হওয়ার বিষয়টি ‘বেছে’ নিয়েছি।’

টিম কুক: জবসের পর এখন অ্যাপল সামলাচ্ছেন টিম কুক। ২০১৪ সালে লেখা এক প্রবন্ধে কুক সমকামী হওয়ার বিষয়টি ঘোষণা করেন। তিনি লিখেন, ‘সমকামী হয়ে আমি গর্বিত। আমি মনে করি, ঈশ্বর আমাকে যত সেরা উপহার দিয়েছেন তার মধ্যে এই বৈশিষ্ট্য একটি। আমার এই বক্তব্য (অ্যাপলের প্রধান একজন সমকামী) যদি অন্য কারও জন্য, যারা সমকামী পরিচয় দিতে সাহস পাচ্ছেন না, অনুপ্রেরণার উৎস হয় তাহলে এই ব্যক্তিগত বিষয়টি প্রকাশ করাই যায়।’

ইয়ান থর্প: অস্ট্রেলিয়ার হয়ে পাঁচবার অলিম্পিক সোনা জেতা সাঁতারু ইয়ান থর্প ২০১৪ সালে এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে নিজের সমকামী হওয়ার বিষয়টি প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘আমার বয়স যখন ১৬ তখন থেকেই গণমাধ্যম আমাকে আমার লিঙ্গের বিষয়ে প্রশ্ন করা শুরু করে। তখন আমি তাদের সত্য কথাটি বলিনি। আজ আমার বয়স ৩১। আমি স্বস্তি নিয়ে বলছি যে, আমি সমকামী এবং আবার বাবা-মা, বন্ধু-বান্ধব সবাই বিষয়টি জানার পর আমাকে সমর্থন করেছেন।’

নিল প্যাট্রিক হ্যারিস: জনপ্রিয় টেলিভিশন কমেডি সিরিজ ‘হাও আই মেট ইওর মাদার’ এর স্টিনসন চরিত্রে অভিনয় করা নিল প্যাট্রিক হ্যারিস ২০০৬ সালে বলেন, ‘আমি সমকামী, এই পরিচয় জানাতে পেরে গর্বিত।’ ২০১১ সালে নিউইয়র্কে সমলিঙ্গের বিয়ে বৈধ হওয়ার পর ২০১৪ সালে হ্যারিস তার সঙ্গী বার্টকাকে বিয়ে করেন।






মন্তব্য চালু নেই