মেইন ম্যেনু

নিবন্ধন জটিলতায় বাদ পড়ারাও যেতে পারবেন হজে

নিবন্ধন জটিলতার শিকার প্রায় সাড়ে ১২শ’ হজ গমনেচ্ছু হজে যেতে পারবেন। বিভিন্ন হজ এজেন্সির মাধ্যমে প্রাক নিবন্ধনকৃত এসকল হজ গমনেচ্ছুর আবেদনের বিষয়টি ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা। মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) এর সভাপতি ইব্রাহিম বাহার জানান, ধর্ম মন্ত্রণালয় আবেদনপত্রগুলো যাচাই-বাছাই করে সন্তুষ্ট হলে নিবন্ধনভুক্ত করে হজে যাওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

একইসঙ্গে প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে নিবন্ধনের ভুলত্রুটির বিষয়টি সংশোধনের সুযোগ সৌদি সরকার প্রদান করবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, প্রাক নিবন্ধিত যেসব হজ গমনেচ্ছু জটিলতার শিকার হয়েছেন, তারা অধিকাংশই একই পরিবারের সদস্য। প্রাক নিবন্ধনে ডাটা অ্যান্ট্রি করার সময় একটু বিলম্বের ফলে সিরিয়াল নম্বর হাজারেরও বেশি পিছিয়ে গেছে। সিরিয়াল পিছিয়ে পড়ার কারণে কোটা পূরণ হয়ে যাওয়ায় স্বামী নিবন্ধিত হলে স্ত্রী, স্ত্রী নিবন্ধিত হলে স্বামী, ছেলে নিবন্ধিত হলে মেয়ে অথবা মেয়ে নিবন্ধিত হলে ছেলে বাদ পড়েছেন। ফলে একই পরিবার একসঙ্গে হজে যাওয়ার নিয়ত করে রাখলেও নিবন্ধন প্রক্রিয়ার কারণে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। তাদের মধ্যে আবার অনেক মাহরাম (মহিলাদের সঙ্গে যাওয়া অভিভাবক যার সঙ্গে মহিলার বৈবাহিক সম্পর্ক হারামও) রয়েছেন।

এদিকে, ইতোমধ্যে নিবন্ধনের জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বেঁধে দেয়া সময় শেষ হয়েছে। গত ১৫ জুন (বুধবার) পর্যন্ত প্রাপ্ত এক হিসাবে দেখা গেছে, সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার ৬৯৯ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৮৬ হাজার ২৯ জনসহ মোট ৯০ হাজার ৭০১ জন নিবন্ধিত হয়েছেন। সরকারি ব্যবস্থাপনায় এখনও নিবন্ধন চলছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়াধীন হজ অফিস (পরিচালক) ও উপসচিব ডা. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল বিভিন্ন হজ এজেন্সি থেকে নিবন্ধন জটিলতার শিকার আবেদনপত্র পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, ইতিপূর্বে আবেদনপত্র বাছাই করে ২৫৬ জন মাহরামদের (মহিলা হজ গমনেচ্ছুদের সঙ্গে হজে যাবেন এমন অভিভাবক) নিবন্ধনের সুযোগ দেয়া হয়েছে।

আবেদনপত্রগুলো আবার যাচাই-বাছাই করে যুক্তিসঙ্গত কারণ খুঁজে পেলে সিরিয়ালে পিছিয়ে পড়লেও একই পরিবার কিংবা মাহরামকে সুযোগ দেয়ার বিষয়টি বিবেচনাধীন রয়েছে। ধর্মমন্ত্রী বিদেশ থেকে ফিরে আসলে এসব আবেদনপত্রের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে জানান তিনি।জাগো নিউজ






মন্তব্য চালু নেই