মেইন ম্যেনু

নিরাপত্তা ঝুঁকিতে আছে সংসদ

জাতীয় সংসদের নিরাপত্তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিরোধীদলীয় সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ। তার মতে, বর্তমানে নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রয়েছে জাতীয় সংসদ।

তিনি বলেন, ‘সংসদ ভবন এলাকায় নিরাপত্তা বেষ্টনী দুর্বল। ঝুঁকিতে আছে সংসদ। পার্লামেন্ট ক্লাবের পাশের অংশে কোনো লাইট না থাকায় কে আসে কে যায় তা নিয়েও উদ্বেগ রয়েছে।’

বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা জানান।

এ সময় সংসদে বিয়ের অনুষ্ঠান ও লেকে মাছ ধরা নিষিদ্ধ করার বিষয়টিও তুলে ধরেন কাজী ফিরোজ রশিদ। তিনি বলেন, ‘বিয়ের অনুষ্ঠানে যারা আসে তারা অনেকেই বড় বড় প্যাকেটে নানা গিফট নিয়ে আসে। কোনো একটার মধ্যে কেউ যদি বড় আকারের বোমা নিয়ে ঢুকেন তা বুঝার কোনো উপায় নেই।’

অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে রওশন এরশাদ জানান, অষ্টম জাতীয় বেতনস্কেলে টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বাতিল করায় ২১ লাখ সরকারি ও ৫ লাখ বেসরকারি শিক্ষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যাদের আর পদমর্যাদা বৃদ্ধির কোনো আশা নাই।’ নন এমপিওভুক্ত সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সমস্যা সমাধনে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

এ সময় সতন্ত্র সংসদ সদস্য রুস্তম আলী ফরাজী এ টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড নিয়ে সৃষ্ট সমস্যার সমাধানের পাশাপাশি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সিনিয়র সচিবের মর্যাদা দেয়ার কথাও তুলে ধরেন। এছাড় নন এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের আন্দোলনে সরকারের কোনো দায়িত্বশীল ব্যক্তি খোঁজ না নেয়ায় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রী দেশের বাইরে রয়েছেন, সেক্ষেত্রে তো শিক্ষা সচিবও সেখানে তাদের খোঁজ-খবর করতে যেতে পারতেন।’

এছাড় স্বতন্ত্র সংসদ হাজী মো. সেলিম, সাংসদ সদস্য সালমা ইসলাম আলোচনায় অংশ নেন।






মন্তব্য চালু নেই