মেইন ম্যেনু

নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু আজ

প্রতীক বরাদ্দের মাধ্যমে আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে প্রথম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা। তবে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হলেও আচরণবিধি তদারকির জন্য মাঠে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী থাকবে কি না এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা নেই ইসির।

গতকাল বুধবার ১ম ধাপের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার শেষ হয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করবে সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসাররা। এরপরেই প্রতীক নিয়ে চূড়ান্ত প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচারণায় নামতে পারবেন।

এবারই প্রথম ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ভোট হচ্ছে। ফলে আওয়ামী লীগের নৌকা, বিএনপির ধানের শীষসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল সমর্থিত প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা নিজ নিজ দলের প্রতীক নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা শুরু করবেন। অন্যদিকে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা লটারির মাধ্যমে বরাদ্দপ্রাপ্ত প্রতীক নিয়ে প্রচারণা চালাবেন। একইভাবে সংরক্ষিত সদস্য ও সাধারণ সদস্যরাও প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে প্রচারণায় নামবেন আজ থেকে।

প্রচারণা শুরুর ব্যাপারে ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করতে পারবেন।’

সাধারণ ইসি কর্মকর্তারা জানান, ইউপি নির্বাচনে প্রচারণায় জনসভা-শোভাযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা থাকছে। এমনকি পথ সভা ও ঘরোয়া সভা করতে হলেও ২৪ ঘণ্টা আগে স্থান ও সময় সম্পর্কে স্থানীয় পুলিশকে অবহিত করতে হবে। এছাড়া নির্বাচনে সরকারি সুবিধাভোগী অতিগুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির পাশাপাশি সংসদ সদস্য ও সিটি করপোরেশনের মেয়ররা প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন না।

তবে প্রচারণার বিধি নিষেধের ক্ষেত্রে প্রত্যেক নির্বাচনের আগে আচরণবিধি মেনে চলতে নির্বাচনে অংশ নেয়া দলগুলোর কাছে, সংসদ সদস্য ও মন্ত্রীদের বিষয়ে সংসদ সচিবালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে চিঠি দেয়া হলেও এবার কোনো নির্দেশনা দেয়া হয় নি। এমনকি বৃহস্পতিবার থেকে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হলেও আচরণ বিধি প্রতিপালনের বিষয়ে তদারকি করার জন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে নামানো হয়নি। যদিও ইসি থেকে বলা হচ্ছিলো কাল থেকে আচরণ বিধি তদারকি করার জন্য উপজেলা প্রতি একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবে। তবে কমিশন থেকে এখন পর্যন্ত ম্যাজিস্ট্রেট নামানোর ব্যাপারে জনপ্রশাসন বা রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কোনো নির্দেশনামূলক চিঠি প্রদান করা হয়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব শামসুল আলম বলেন, ‘কালকে থেকে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হবে। মাঠে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থাকবে।’

ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এখনও কোনো নির্দেশনা পাঠানো হয়নি। কালকে আসেন জানতে পারবেন।’

তফসিল অনুযায়ী প্রথম ধাপে ৭৩৪ ইউপিতে ভোটগ্রহণ ২২ মার্চ। ইতিমধ্যে মনোনয়নপত্র যাছাই বাছাই ও প্রত্যাহার শেষ হয়েছে। একই সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যাও চূড়ান্ত হয়েছে। চূড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে আজ প্রতীক বরাদ্দ করা হবে।

তবে এখন পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনের পক্ষে থেকে ১ম ধাপের চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যা জানাতে পারে নি।

উল্লেখ্য, প্রথম ধাপে তিন পদে মোট ৩৯ হাজার ৪৩০ জন প্রার্থী মনোনয়পত্র দাখিল করেছেন। এর মধ্যে ৭৩৮টি চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা পড়েছিলো ৩ হাজার ৫৬৮ জন। ১৬ দলের মনোনীত এক হাজার ৯ জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এক হাজার ৬৬৮ জন ছিল। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ২৭ হাজার ৯৪৭ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৭ হাজার ৯১৫জন প্রার্থী। তবে বাছাইয়ের আগ পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ২৫ ইউপিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

এদিকে দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় বুধবার শেষ হয়েছে। এই ধাপে ৬৫১ ইউপিতে ভোটগ্রহণ হবে আগামী ৩১ মার্চ। মনোনয়নপত্র বাছাই ৫ ও ৬ মার্চ। আপিল দাখিল ৭ থেকে ৯ মার্চ। ১০ থেকে ১২ মার্চের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি করতে হবে। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৩ মার্চ। চূড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে ১৪ মার্চ প্রতীক বরাদ্দ করবেন সংশ্লিষ্ট ইউপির রিটার্নিং কর্মকর্তারা।






মন্তব্য চালু নেই