মেইন ম্যেনু

নির্বাচন সংক্রান্ত একটা বেশি এক হালি কৌতুক

সামনে স্থানীয় নির্বাচন। সাধারণ মানুষের মধ্যে এবার ভোট দেওয়ার আগ্রহ দেখা গেছে। ইতোমধ্যে নির্বাচনী প্রচারণা জমে উঠেছে। আর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আজ রইল এক হালি কৌতুক।

আমার কি শখ হয় না?

নির্বাচনের প্রার্থীকে জিজ্ঞেস করছেন সাংবাদিক: আপনি কেন নির্বাচনে দাঁড়িয়েছেন?

প্রার্থী: আপনি কি দেখতে পাচ্ছেন না, চারদিকে কী ঘটছে? সরকারি লোকেরা আমোদ-প্রমোদে মত্ত, দুর্নীতিতে ছেয়ে গেছে দেশ।

সাংবাদিক: আপনি এর বিরুদ্ধে লড়ার জন্যই নির্বাচন করছেন?

প্রার্থী: পাগল নাকি! আমার কি আমোদ-প্রমোদ করতে শখ হয় না?

 

ভোট দিয়া গেছে

দুই ভোটার কথা বলছে-

প্রথম জন: গেছিলাম ভোট দিতে, দিতে পারলাম না। কে জানি আগেই আমার ভোটটা দিয়া গেছে।

দ্বিতীয় জন: তাতে কী! আমারটাও কে জানি দিয়া গেছিল, আমি আরেকজনেরটা দিয়া আসছি।

প্রথমজন: আমারে কি বেকুব ভাবছস? আমিও একই কাজ করছি!

 

আগে খাল, পরে ব্রিজ

চেয়ারম্যান: আমি যদি এবার চেয়ারম্যান হতে পারি, তাহলে এই এলাকায় একটি ব্রিজ করে দিব।

জনৈক ব্যাক্তি: এই গ্রামে তো কোনো খাল নেই, আপনি ব্রিজ করবেন কিভাবে?

চেয়ারম্যান: …প্রথমে খাল করব তারপর ব্রিজ করব!

 

শুধুই বিল পাস

এক নেতা যখন ভোটে দাঁড়ালেন, প্রচুর পোস্টার ছাপালেন। প্রেসের লোক এসে বলল, ‘স্যার, এত পোস্টার ছাপালেন, বিলটা তো পাইলাম না।’ নেতা বললেন, ‘খাড়াও মিয়া, খালি সংসদে যাই, তারপর তো শুধু বিলই পাস করমু।’

তৃতীয় ভোটার কে?

এক লোকের খায়েশ হয়েছে তিনি সংসদ নির্বাচন করবেন। দাঁড়িয়েও গেলেন ভোটে। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে। ভোট হলো। গণনা শেষে দেখা গেল, তিনি মাত্র তিনটি ভোট পেয়েছেন। লোকটির স্ত্রী তো রেগে আগুন। বলল, ‘আমি আগেই সন্দেহ করেছিলাম, তুমি নিশ্চয় অন্য কোনো মেয়েকে ভালোবাস। তা না হলে তৃতীয় ভোটটা দিল কে?’






মন্তব্য চালু নেই