মেইন ম্যেনু

‘নির্বাচিত হলে মিয়ানমার সরকারের নেতৃত্ব দেব’

মিয়ানমারের বিরোধী দলীয় নেত্রী অং সাং সুকি দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেছেন, আসন্ন নির্বাচনে তার দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) বিজয়ী হলে তিনিই দেশের নেতৃত্ব দেবেন।

যদিও তার মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পথে বেশ কিছু সাংবিধানিক প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। সে দেশের সংবিধানে কোনো ব্যক্তি বিদেশি নাগরিক বিয়ে করলে কিংবা তার কোনো সন্তান বিদেশি নাগরিকত্ব নিলে তিনি প্রেসিডেন্ট হতে পারেন না। ফলে তার দল বিজয়ী হলেও প্রেসিডেন্ট হতে পারছেন না সুকি।

মিয়ানমারে গত ২৫ বছর পর ৮ নভেম্বর সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ওই নির্বাচনে সুকির দল জয়লাভ করবে বলে ধারনা করা হচ্ছে। এই নির্বাচনকে মিয়ানমারের স্বাধীনতার ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন হিসেবে উল্লেখ করেছেন ৭০ বছরের এই নেত্রী। তবে দল জয়লাভ করলেও সাংবিধানিক জটিলতার কারণে তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

এ সম্পর্কে ইন্ডিয়ান টুডে টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সুকি বলেছেন ‘নির্বাচনে যদি আমার দল এনএলডি বিজয়ী হয় এবং আমরা সরকার গঠন করতে পারি তাহলে আমিই মিয়ানমার সরকারের নেতৃত্ব দেব। আমি প্রেসিডেন্ট হই বা না হই তাতে কিছু যায় আসে না।’ মিয়ানমারে প্রেসিডেন্ট বা প্রধানমন্ত্রী না হয়েও সরকার পরিচালনা করা যায়। তাই ‘দেশ পরিচালনার জন্য প্রেসিডেন্ট হতেই হবে’ এমনটি মনে করছেন না সুকিও।

তবে তিনি ভারতের কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর মত সরকারের পিছনে থেকে দায়িত্ব পালনের সম্ভবনা উড়িয়ে দিয়েছেন। কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকতে দলের সভানেত্রী হিসেবে মনমোহন সিং সরকারে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন সোনিয়া।






মন্তব্য চালু নেই