মেইন ম্যেনু

নিয়োগ বানিজ্য হরিণাকুন্ডুর মান্দিয়া আইডিয়াল কলেজে তালা ক্লাস বন্ধ

নিয়োগের নিয়ে জটিলতার কারণে হরিণাকুন্ডু উপজেলার মান্দিয়া আইডিয়াল কলেজে তালা ঝুলিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। রোববার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কলেজে গিয়ে তালা ঝোলানো দেখতে পায়। তালা লাগানোর কারনে শিক্ষকরা ক্লাস করতে পারেনি। তালা লাগানো দেখে শিক্ষার্থীরাও বাড়ি ফিরে যেতে বাধ্য হয়। এদিকে এ ঘটনা নিয়ে স্থানীয় দুটি গ্র“পের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছে এলাকাবাসি।

এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। যে কোন সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের অঘটন। স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা রইচ উদ্দীন অভিযোগ করেন, কলেজের সভাপতি আফজাল হোসেন ও অধ্যক্ষ রবজেল হোসেন মিলে ৬ জন শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে প্রায় ৪২ লক্ষ টাকার বানিজ্য করেছেন। শিক্ষক নিয়োগের এ টাকা যাতে কেউ লুটপাট করতে না পারে সেজন্য তারা এ আন্দোলন করছেন বলে রইচ উদ্দীন জানান।

তিনি অভিযোগ করেন অধ্যক্ষ রবজেল হোসেন কলেজের বিভিন্ন ফান্ডের টাকা তছরুপ করলেও সভাপতি কোন ব্যবস্থা নেন না। এলাকার মিলন নামে আরেক জন অভিযোগ করেন, গোপনে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে এবং নিয়োগের টাকার সুষ্ঠ হিসাব না পাওয়া পর্যন্ত কলেজের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। এ বিষয়ে অধ্যক্ষ রবজেল হোসেন জানান, গত বছর বিজ্ঞান বিভাগে শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনুমোদন পাওয়া যায়। সে মোতাবেক পদার্থ, রসায়ন, গনিত, বায়োলজি ও বানিজ্য বিভাগে উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও বিপনন এবং কৃষি বিষয়ে সার্কুলার দেয়া হয়।

গত ২৯ মে নিয়োগ বোর্ড গঠন করে বিজ্ঞান ও বানিজ্য বিভাগ মিলে ৬ জন প্রভাষককে নিয়োগ দেয়া হয়। শিক্ষক নিয়োগে কোন বানিজ্য হয়নি বলে তিনি জানান। এ বিষয়ে মান্দিয়া আইডিয়াল কলেজের সভাপতি আফজাল হোসেন তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ খন্ডন করে বলেন, ৫/৬ বার পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়েও বিজ্ঞানের শিক্ষক পাওয়া যাচ্ছিল না।

এ অবস্থায় জানুয়ারী মাসে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে কয়েকজন বিজ্ঞানের প্রার্থী পাওয় যায়। তিনি বলেন বিজ্ঞান বিভাগে যোগ্য শিক্ষক পাওয়া দুস্কর। এ জন্য নিয়োগের সময় টাকা নেওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। তিনি বলেন, ব্যক্তিগত সুবিধা নেবার জন্য এলাকার কিছু লোক তালা ঝোলায়। রোববার সকালেই মান্দিয়া এলাকার লোকজন ঔক্যবদ্ধ হয়ে বন্ধ তালা খুলে দিয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক বলেও কলেজ সভাপতি দাবী করেন।






মন্তব্য চালু নেই