মেইন ম্যেনু

নৈসর্গিক সৌন্দর্যের শহর ‘দিজন’ এ ‘মহারাজা’

আবু তাহির, ফ্রান্স: রন্ধন শিল্প পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ কে দিয়েছে আলাদা সম্মান। হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী বাঙালি খাবার বহিঃবিশ্বে বাংলাদেশকে পরিচিত করতে বিরাট সহায়তা করছে। এক সময় বাঙ্গালি খাবার ইন্ডিয়ান নাম পরিচালিত হলেও ইদানিং কালে মেধাবী প্রবাসীদের প্রচেষ্টায় বাঙালি খাবার পৃথিবীতে একটা বড় ব্র্যান্ড এর মত সুনাম অর্জন করছে বলে ফরাসীদের সামনে বাংলা খাবারের ঐতিহ্য তুলে ধরেন ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশ কমার্শিয়াল কাউন্সিলার ফিরোজ উদ্দিন।

বিপুল সংখ্যক ফরাসীদের অংশগ্রহনে ফ্রান্সের পূর্বাঞ্চলে নৈসর্গিক সৌন্দর্য মন্ডিত দিজন শহরে বাংলাদেশী রন্দন শিল্পকে বিস্তৃত করার লক্ষ্যে বিশাল আয়োজনে উদ্ভোধন হলো মহারাজা রেস্টুরেন্ট।

12935377_460069220852358_655408739_n

গত বৃহস্পতিবার দিজন শহরের প্রাণকেন্দ্রতে জমকালো আয়োজনে রেস্টুরেন্ট এর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ দূতাবাস কমার্শিয়াল কাউন্সিলার ফিরোজ উদ্দিন, দিজন মিউনিসিপিলিটি কাউন্সিলর মেডাম ডমিনিক। এসময় আগত অতিথিদের কে শুভেচ্ছা জানান বাংলার আগুন খ্যাত মহারাজা রেস্টুরেন্ট এর সত্তাধিকারী ফয়জুল হক, তরুণ ব্যবসায়ী আমির সোহেল ও রেহানা ফয়জুল।

এসময় বক্তারা বলেন ফ্রান্সে রন্ধন শিল্পে বাংলাদেশীরা এগিয়ে যাচ্ছে দ্রুত গতিতে। ফয়জুল এর মত তরুনরা এগিয়ে আসলে বৃটেনের মত ফ্রান্সেও বাংলাদেশের খাবার একটি বিখ্যাত শিল্প হিসাবে পরিচিত হবে। শৈল্পিক সাজে বাংলাদেশীদের ঐতিহ্যবাহী এ খাবারকে ইউরোপের খাবারের তালিকায় বিশেষ স্থান দিতে বাংলাদেশ সরকারের পৃষ্ঠপোষকতার গুরুত্ব তুলে ধরেন বক্তারা।






মন্তব্য চালু নেই