মেইন ম্যেনু

পারিবারিক কলহের জের

নোয়াখালী চাটখিলে শিশু সারিয়াকে হত্যার অভিযোগ

এম.এ আয়াত উল্যা, স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী : পারিবারিক কলহের জের ধরে নোয়াখালী জেলার চাটখিলে খিলপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিন দেলিয়াই গ্রামের চিন্তারবাড়ীর ২ বছরের শিশু হাফসা আক্তার সারিয়াকে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। এ হত্যাকান্ড নিয়ে এলাকার লোকজনের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। জানা গেছে, দক্ষিণ দেলিয়াই গ্রামের মৃত ওজিউল্লার ছেলে হারিছ চৌধুরীর সাথে ৩ বছর আগে একই গ্রামের ওয়ায়েদুল হক উকিল বাড়ীর প্রবাসী জসিম উদ্দিনের মেয়ে সানজিদা আক্তার জেনি (২১) এর বিয়ে হয়। বিয়ের ১ বছর পর সারিয়ার জন্ম হয়। এরপর থেকে জেনির স্বামী হারিছ জেনিকে শারীরিক এবং মানষিক ভাবে নির্যাতন করতে থাকে। এ নিয়ে এলাকায় কয়েক বার শালিশী বৈঠক হয়েছে। এতে হারিছ এর অত্যাচার কমেনি। হারিছ প্রতিনিয়ত জেনিকে মোবাইল ফোনে তাকে ডিভোর্স দেওয়ার জন্য হুমকি দিত। সর্বশেষ তাকে ডিভোর্স না দিলে সারিয়াকে হত্যা করার হুমকি দেয়। অবশেষে সোমবার দুপুরে বাড়ীর পাশে আবাদি জমির হাটু পরিমান পানিতে সারিয়ার মৃত দেহ পাওয়া যায়। সারিয়ার মামা জহিরুল ইসলাম জুয়েল জানান সারিয়ার গলায় আঙ্গুলের ছাপ রয়েছে। তাকে হত্যা করে পানিতে ফেলে দেওয়া হয়। মেয়ের শোকে মুহুমান মা জেনি বার বার মূর্ছা যাচ্ছে। তাকে চাটখিল আল বারাকা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ১০ দিন আগে সারিয়ার লম্পট বাবা পাশের দেলিয়াই গ্রামের আইডগা বাড়ির বেলালের মেয়ে এবং চাটখিল পাঁচগাও সরকারি কলেজের দ্বাদশ প্রথম বর্ষের ছাত্রী নিশি আক্তার (১৮) কে অপহরন করে নিয়ে যায়। এব্যাপারে নিশির বাবা বেলাল হারিছের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছে। অন্যদিকে সারিয়াকে হত্যা করা হয়েছে মর্মে সোমবার রাতে তার মামা জহিরুল ইসলাম রুবেল চাটখিল থানায় একটি অভিযোগ করেছেন। মঙ্গলবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য সারিয়ার লাশ চাটখিল থানা পুলিশ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আবুল খায়ের জানান ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তবে হারিছ চৌধুরীকে গ্রেফতারের অভিযান চালিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই