মেইন ম্যেনু

নৌকায় ভোট চাওয়া এমপির ওপর চটেছেন মন্ত্রী

সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ফেস্টুন, ব্যানার ও ছবি দেখে ক্ষিপ্ত হয়েছেন তিনি। এছাড়াও অনুষ্ঠানের সভাপতি ও সাভারের সংসদ সদস্য নৌকায় ভোট চাওয়ায় চটেছেন মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের নবীন বরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমন ক্ষোভ প্রকাশ করেন সড়ক যোগযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

ক্ষোভ প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি কি আপনাদের ব্যানার, ফেস্টুন সরিয়ে আমার ফেস্টুন স্থাপনের জন্য অনুরোধ করেছি? বলুন, চুপ করে আছেন কেন? অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমার সব ছবি অপসারণ করবেন। এটাই আমার নির্দেশ। আর আপনারা যদি আমার ছবি অপসারণ না করেন তাহলে পুলিশকে ছবি অপসারণের নির্দেশ দেব।’

সাভারের স্থানীয় সংসদ সদস্যকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘এটা একটি কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠান। সব অনুষ্ঠানে ভোট চাইতে হয় না। ভোট চাওয়ার জন্য রাজনীণিক অনেক অনুষ্ঠান পাবেন। সেখানে নৌকায় ভোট চাইবেন। আর এর জন্যই এদেশের মানুষ কিন্তু আপনাকে ভোট দেবে না।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘জনগন ছবি দেখে ভোট দেয় না। কাজ দেখে ভোট দেয়। কাজের সঙ্গে ভালো আচরণ লাগবে। আপনি যদি ভালো কাজের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন তাহলেও ভোট দেবে না। কাজেই জনগণের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করতে হবে। মনে রাখবেন কাগজের ছবি ছিড়ে যাবে। পোস্টারের ছবি মুছে যাবে। বিলবোর্ড ভেঙে যাবে। তবে হৃদয়ের ছবি রয়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে যারা রাজনীতি করেন এবং ভবিষতে যারা করবেন তাদের কাছে আমার অনুরোধ ভালো কাজ আর ভালো ব্যবহার করে মানুষের হৃদয়ে নাম লেখাবেন।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমি শেখ হাসিনার সরকারের একজন মন্ত্রী। কিন্তু আমার দুটি সত্ত্বা আছে। আমি যখন একটা নিরপেক্ষ অনুষ্ঠানে আসবো তখন আমার আওয়ামী লীগ বাদ। আমি নিরপেক্ষ হয়ে যাব।’

এ সময় সাভারের একটি বিলবোর্ডে আওয়ামী লীগের ৩৭ জন নেতার ছবির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি সাভারের একটি বিলবোর্ডে ৩৭ জন নেতার ছবিও গুনেছি। সব নেতাদের ছবি। আগে নেতাদের পোস্টার লাগাতো কর্মীরা। আর এখন টাকা দিয়ে টোকাইদের দিয়ে পোস্টার লাগাতে হয়। কারণ দেশে কর্মী নেই। কর্মী তৈরির কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। বাংলাদেশ এখন নেতা তৈরির কারখানায় পরিণত হয়েছে।’

সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে বাংলাদেশে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশকে চোর বানাতে চেয়েছিল। এ জাতি চোরের জাতি নয় বীরের জাতি। তাই নিজস্ব অর্থায়নে দেশের সর্ববৃহৎ ও বিশ্বের ১৭ তম পদ্মাসেতু নির্মাণ করছে সরকার।’

আগামী সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে এই মুহূর্তে কোনো মধ্যবর্তী নির্বাচনের সম্ভাবনা নেই। ২০১৯ সালে শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।’






মন্তব্য চালু নেই