মেইন ম্যেনু

নয় বছর পর রায়নাকে ছাড়া প্রথম আইপিএল

সেই ২০০৭ সাল থেকে শুরু। আইপিএল আর সুরেশ রায়না যেন হয়ে গেছে একে অপরের নাম। গত ৯টি বছর রায়না ছাড়া কখনও আইপিএলের ম্যাচ অনুষ্ঠিত হতে পারে এটা ছিল যেন কল্পনারও বাইরে; অথচ সেই সত্যিটাই এবার ঘটতে যাচ্ছে। অবশেষে ৯ বছর পর এসে আইপিএলের কোন ম্যাচ খেলতে পারছেন না সুরেশ রায়না।

ব্যাঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে মুখোমুখি রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু এবং গুজরাট লায়ন্স। ম্যাচটা ব্যাঙ্গালুরুর জন্য এতটাই গুরুত্বপূর্ণ যে, যাকে বলা যেতে পারে জীবন-মরণ সমস্যা। শেষ চারের সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে হলে বিরাট কোহলিদের আজ জিততেই হবে। প্রতিপক্ষ এমন একটি দল, যারা এবারের আইপিএলে নাম লিখিয়েই যেন উড়ছিল প্রথম থেকে। বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৪টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

তবে গুজরাট লায়ন্সও মাঝে ছন্দ হারিয়েছিল। যদিও সর্বশেষ কেকেআরের বিপক্ষে জয় দিয়ে সেই ছন্দ তারা ফিরিয়ে আনতে পেরেছিল। আজ অধিনায়ককে ছাড়াই মাঠে নামতে হচ্ছে গুজরাটকে। তাহলে তারা কী আজ পারবে ব্যাঙ্গালুরুকে হারিয়ে আবারও নিজেদের শীর্ষস্থান পূনরূদ্ধার করতে!

গত মাসেই নিজের প্রথম সন্তানের মুখ দেখতে নেদারল্যান্ডস উড়ে গেলেন গুজরাট লায়ন্স অধিনায়ক সুরেশ রায়না। এখনও পর্যন্ত দেশে ফেরেননি তিনি। ৫ দিনের বিরতির কারণে তিনি আশা করেছিলেন, সময় মতই দেশে ফিরবেন। তবে নেদারল্যান্ডসে কাজ শেষ করতে না পারায় ফিরতেও পারেননি এবং আইপিএলের নয় বছরের ইতিহাসে রায়না এই প্রথম কোন ম্যাচ মিস করতে যাচ্ছেন। সুরেশ রায়নার পরিবর্তে গুজরাটকে আজ নেতৃত্ব দিতে পারেন সাবেক কিউই অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম।

শেষ চারের সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে হলে বিরাট কোহলিদের শুধু আজই নয়, বাকি তিনটি ম্যাচের সবগুলোই জিততে হবে। অথচ তাদের কী কপাল, শেষ চারটি ম্যাচের তিনটিই এবারের আসরের তিন শিরোপা প্রত্যাশি গুজরাট, কেকেআর এবং দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের বিপক্ষে।

চলতি আসরের প্রথম নিজেদের মুখোমুখি লড়াইয়ে ব্যাঙ্গালুরুর বিশাল রান টপকে জিতেছিল লায়ন্স। বিরাট কোহলিদের ব্যাটে ওইদিন রান উঠেছিল ১৮১। এপ্রিলের ২৪ তারিখ অনুষ্ঠিত হওয়া ওই ম্যাচে ১৮১ রান তাড়া করে জিতে গিয়েছিল গুজরাট। ওই ম্যাচে জয়ের নায়ক ডোয়াইন স্মিথ বলেছিলন, ব্যাঙ্গালুরুর অ্যাটাক খুব একটা শক্তিশালি ছিল না।

আজ কেমন হয় সেটাই দেখার বিষয়!






মন্তব্য চালু নেই