মেইন ম্যেনু

পথ পাল্টেছে পতিতারা

দেহব্যবসা নিষিদ্ধ ঘোষিত হওয়ার কারণে উত্তর ইউরোপের রাস্তাগুলো থেকে সরে গেছে পতিতারা। সুইডেন, নরওয়ে ও আইসল্যান্ডে যৌন ব্যবসা আগের চেয়ে কমে গেছে বলেও দাবি করেছে দেশগুলো আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা। তবে নরওয়ের এক পতিতালয়ের অন্যতম পরিচালক অ্যাসট্রিড রেনল্যান্ড এএফপিকে বলেন, ‘আইন করে দেহ ব্যবসা নিষিদ্ধ করা হলেও কমেনি এই ব্যবসা। আগে পতিতারা বাইরে থেকে খদ্দের সংগ্রহ করতো। এখন তারা ফোন ও ইন্টারনেট ব্যবহার করে খদ্দের সংগ্রহ করে।’ বুধবার ফ্রান্সে যৌন ব্যবসার সঙ্গে জড়িত খদ্দেরদের বিচারের মুখোমুখি করার জন্য একটি আইন পাস হয়েছে। যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে পতিতারা। নারী অধিকার রক্ষার জন্য ১৯৯৯ সালে সুইডেন প্রথম আইন করে যৌনতা বিক্রি করা নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। এরপর নরওয়ে ও আইসল্যান্ডেও এ আইন কার্যকর করা হয়। এএফপির কাছে ছদ্মনামে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে নরওয়ের এক পতিতা বলেছে, ‘এতদিনেও যেহেতু বন্ধ হয়নি, সুতরাং হবেও না। তবে এর ফরম্যাট আগের মতো নেই, বদলে গেছে অনেকটা। আগের মতো প্রকাশ্যে আর যৌন ব্যবসা চলছে না। তবে গোপনে ঠিকই চলছে। পতিতাদের জন্য এই গোপনীয়তা নিরাপত্তাহীনতার কারণও হয়ে দাঁড়াচ্ছে অনেক সময়।’






মন্তব্য চালু নেই