মেইন ম্যেনু

পদত্যাগ করছেন ফারুক আহমেদ!

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ফারুক আহমেদ। শুক্রবার এমন ইঙ্গিতই দিয়েছেন তিনি। দু্ই একদিনের মধ্যেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন তিনি।

আগে জাতীয় দলের নির্বাচক কমিটির সদস্য ছিল তিনজন। সেটি এখন বেড়ে দাঁড়াবে সাতজনে। তিনজন নির্বাচকের সঙ্গে আরেকজন যোগ হবে। এই কমিটিতে জাতীয় দলের প্রধান কোচ ও এবং দলীয় ম্যানেজারও থাকবে। তবে বোর্ড থেকে একজন পরিচালক নির্বাচকদের কাজের পুরোপুরি তদারকি করায় বেধেছে সমস্যা।

গত দুই বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশ দল দুর্দান্ত পারফর্ম করছে। তাতে করে প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ মনে করছেন বোর্ড তাদের কাজের অবমূল্যায়ন করছে। তাই আমার কাছে মনে হয়েছে এ পদে থাকাটা আমার জন্য আর সমীচিন হবে না।’

আগামীতে প্রস্তাবিত নির্বাচক কমিটি হবে চার সদস্যের। বর্তমান তিন নির্বাচকের দায়িত্বের মেয়াদ বাড়িয়ে তাদের সঙ্গে যোগ করা হবে জুনিয়র নির্বাচক কমিটিতে থাকা সাবেক ক্রিকেটার সাজ্জাদ আহমেদকে। প্রস্তাবিত প্রক্রিয়ায় নির্বাচক কমিটি দল নির্বাচন করে ক্রিকেট পরিচালনা প্রধানের কাছে জমা দেবে।

ক্রিকেট পরিচালনা প্রধান তখন চার নির্বাচক এবং কোচ ও টিম ম্যানেজারকে নিয়ে সভায় বসে দল চূড়ান্ত করবেন। বাধ্যতামূলক না হলেও প্রয়োজন মনে করলে অধিনায়ককেও মতামতের জন্য ডাকা হতে পারে এই সভায়। এখানে দল চূড়ান্ত করার পর সেটা বোর্ড সভাপতির অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে।

অর্থাৎ, চূড়ান্ত অনুমোদনের আগ পর্যন্ত দল নির্বাচনের প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ততা থাকবে অন্তত সাতজনের, অধিনায়ককে নির্বাচনী সভায় ডাকা হলে সংখ্যাটা আটে গিয়ে ঠেকবে। চার নির্বাচকের কমিটিতে প্রধান নির্বাচকের কোনো পদ থাকবে না

এ বিষয়ে ফারুক আহমেদ বলেন, ‘এই প্রস্তাব যদি গৃহীত হয়, তবে ভালো একটা পদ্ধতির সমাপ্তি ঘটবে। যেটা আমরা দীর্ঘদিন ধরে অনুসরণ করে আসছিলাম। বোর্ড যদি এটা মেনে নেয়, তাহলে আমি এ পদে আর থাকবো না। কারণ আমরা তখন স্বাধীনভাবে কোনো কাজ করতে পারবো না। ফলে দুই একটিদিনের মধ্যে আমি আমার চূড়ান্ত সিদ্ধান্তটা বোর্ডকে জানিয়ে দেব।’






মন্তব্য চালু নেই