মেইন ম্যেনু

পবিত্র মক্কার উন্নয়ন চিত্র

মক্কা, ইসলাম ধর্মের জন্মস্থান। বিশ্বের প্রতিটি ধর্মপ্রাণ মুসলিমের কাছে মক্কা একটি পবিত্র নগরী। প্রতিবছর বিশ্বের নানান প্রান্ত থেকে অগুনতি মানুষ এই নগরীতে ভিড় জমান হজের উদ্দেশ্যে। তেলসমৃদ্ধ দেশ সৌদিআরবের সঙ্গে বর্হিবিশ্বের মুসলিমদের যোগসূত্রের অন্যতম কেন্দ্রস্থলও এই মক্কা। আজ যে মক্কা আমরা দেখতে পাচ্ছি তা কিন্তু শুরু থেকেই এরকম ছিল না। দেশটির একেক বাদশার আমলে মক্কার নকশায় আনা হয়েছে বিভিন্ন পরিবর্তন। আর এই পরিবর্তনের দৃশ্য দীর্ঘদিন পৃথিবীর মানুষ দেখতে পায়নি বিভিন্ন বিধিনিষেধের কারণে। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সৌদি কর্তৃপক্ষ মক্কার নকশায় আমূল পরিবর্তন আনার উদ্দেশ্যে কয়েক বিলিয়ন ডলারের প্রকল্প ঘোষণা করেছিলেন।

এই প্রকল্প ঘোষণা করার পরেই মূলত সৌদি কর্তৃপক্ষ গোটা মক্কার ছবি তুলতে সম্মতি দেয়। এই সম্মতির প্রেক্ষিতে বিশ্বের বেশ কয়েকজন নির্দিষ্ট আলোকচিত্রীই কেবল মক্কার বিভিন্ন স্থানের ছবি তুলতে পারেন। তবে সৌদি কর্তৃপক্ষের দাবি, তারা মক্কার উন্নয়নের মধ্যে দিয়ে গোটা মক্কাকে একটি আর্ট নগরী হিসেবে বিশ্ববাসীর সামনে উপস্থাপন করতে চান। মুসলিম জাগরণের সময়কার ক্যালিওগ্রাফি থেকে শুরু করে দালান নির্মানে পর্যন্ত অতীত ঐতিহ্য ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা চলছে।

মক্কা2তবে এই উন্নয়ন পরিবর্তনে যে সকলেই খুশি তা কিন্তু নয়। খোদ সৌদি আরবের অনেক ইসলামিক স্কলারের বক্তব্য হলো, এই পরিবর্তনের ফলে মক্কা তার সাবেক সৌন্দর্য্য হারাবে। এমনকি অনেক হজযাত্রীও এই বিষয়টি নিয়ে অখুশি। তাদের মধ্যে একজন হলেন কুশালা জায়ানি। তিনি মক্কা সম্পর্কে বলতে গিয়ে বললেন, ‘আমি কাবার পুরো এলাকাটি আনন্দের সহিত ঘুরে বেড়াতে চেয়েছিলাম, কারণ এই এলাকাটি আমার কাছে অনেক মূল্যবান। কিন্তু এখন বড় বড় দালানের কারণে দুর্ভাগ্যবশত কিছুই দেখতে পারছি না। আমি বুঝতে পারছি যে হজযাত্রীদের জন্য দালান তৈরির প্রয়োজন আছে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, সৌদি আরব তাদের ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলোকে ধ্বংস করে ফেলবে।’

মক্কা3অবশ্য এবিষয়ে মক্কার মেয়র ওসামা আল বার জানান যে, তারা মক্কার ঐতিহ্য এবং এর ভাব শতভাগ ধরে রাখতে সচেষ্ট। কিন্তু মেয়রের এই বক্তব্যের কয়েকদিনের মাথাতেই মক্কার প্রসিদ্ধ একটি মসজিদে একটি ক্রেন দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ১১০জন মানুষ মারা গিয়েছে। আর এই ঘটনায় হজযাত্রীদের মাঝে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, এই দুর্ঘটনাটি কি আসলেই কোনো দুর্ঘটনা নাকি এটা কোনো ইশারা।

মক্কা4 মক্কা5 মক্কা6






মন্তব্য চালু নেই