মেইন ম্যেনু

পরিবর্তনের ডাক চবির ছাত্রলীগের নব নির্বাচিত কমিটির

সব জল্পনা-কল্পনার পর অবশেষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সভাপতি মো; আলমগীর টিপু এবং সাধারন সম্পাদক ফযলে রাব্বি সুজন।

সোমবার ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বহুল প্রতীক্ষার অবসান ঘটল।গত কমিটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর থেকে থেকে এক ধরণের নেতৃত্বহীনতায় ভুগছিল বাংলাদেশ ছাত্রলীগের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শাখা চবি ছাত্রলীগ।নতুন কমিটি ঘোষণার পর থেকে নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গিয়েছে।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে অভিনন্দন বার্তা এবং নতুন কমিটিকে ঘিরে তাদের আশা আকাঙ্ক্ষার কথা প্রকাশ করছেন নেতাকর্মীরা।এবারের নবগঠিত কমিটিকে চবি ছাত্রলীগের ইতিহাসে আলোড়ন সৃষ্টিকারী কমিটি বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক ছাত্রনেতারা। গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ঐক্যবদ্ধ থেকে নিরলসভাবে দলীয় প্রার্থী আ জ ম নাছিরের নির্বাচনী প্রচারণায় সরব ভূমিকা পালন করে, যা কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে বেশ প্রশংসা কুড়ায়।

অর্থনীতি বিভাগের মেধাবী ছাত্র ও নব নির্বাচিত সভাপতি মো; আলমগীর টিপু, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন সমর্থিত। তিনি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।অপরদিকে ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের কৃতী ছাত্র নব নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক ফযলে রাব্বি সুজন সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী সমর্থিত।এদিকে কমিটি ঘোষণার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ ও সাধারন সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিক,নেতা-কর্মী ও শুভাকাংখীদের প্রতি শুভেচ্ছাসহ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন নব নির্বাচিত সভাপতি মো; আলমগীর টিপু এবং সাধারন সম্পাদক ফযলে রাব্বি সুজন।

গতকাল নব-নির্বাচিত সভাপতি মোঃ আলমগীর টিপু সহ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা নব গঠিত কমিটি উপলক্ষে নগরপিতা আ জ ম নাছির উদ্দিনকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও মিষ্টিমুখ করান। এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় ভিসি প্রফেসর ডঃ ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী ও প্রক্টর আলি আজগর চৌধুরী এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সাইফুল আলম লিমনসহ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক নেতৃবৃন্দ। অন্যদিকে নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ফজলে রাব্বী সুজন নগর আওয়ামীলীগ সভাপতি এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় ও সৌজন্য সাক্ষাত করেছেন।

চবি ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ গ্রুপিং নিরসন করে ক্যম্পাসে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে দ্বিধা -দ্বন্দ্ব ভুলে সকলকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে শান্তিপূর্ণ এক নতুন ক্যাম্পাস উপহার দেবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন নব নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক।চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়কে মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতামুক্ত রাখতে আপোষহীন থাকবেন বলে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারন করেন উভয় নেতা।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা এসএম আরিফুল ইসলামকে কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক এবং এএম শাহাদাত হোসাইন জুয়েল ও দিয়াজ ইফরান চৌধুরীকে সদস্য করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক শেখ রাসেল।

নতুন উপাচার্য মহোদয় দায়িত্ব নেবার কিছুদিন পরই ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের নতুন কমিটিকে গুরুত্বের সাথে দেখছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে চবি ছাত্রলীগের নতুন কমিটি কাজ করে যাবে বলে মনে করেন তারা।






মন্তব্য চালু নেই