মেইন ম্যেনু

‘পরিবারের সম্মান রক্ষার্থে বোনকে খুন করেছি’

নিজের ভাইয়ের হাতে খুন হয়েছেন পাকিস্তানের জনপ্রিয় মডেল ও সোশাল মাধ্যমের জনপ্রিয় কান্দেল বেলুচ। তাকে খুন করার দায়ে এরইমধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছে তার সেই ভাইটিও। গণমাধ্যমে দেয়া স্বীকারোক্তিতে খুনী জানিয়েছে অন্য কোনো কারণে নয়, শুধুমাত্র পরিবারের সম্মান রক্ষার তাগিদেই বোনকে খুন করার পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তিনি।

তবে গুলি করে নয়, মডেল কান্দিলকে চেতনা নাষক ঔষুধ খাইয়ে তারপর শ্বাসরুধে হত্যা করা হয়েছে। নিজের বোনকে খুন করে শনিবার গ্রেপ্তারের পর গণমাধ্যমে এভাবেই স্বীকারোক্তি দেন কান্দিল বেলুচের ভাই মোহাম্মদ ওয়াসিম।

গণমাধ্যমে অবলীলায় বোনকে খুনের ফিরিস্তি দেন ওয়াসিম। স্বীকারোক্তিতে তিনি জানান, কান্দিল আমাদের বংশের জন্য অভিশাপ বয়ে আনছিল। সোশাল সাইটে তার কর্মকাণ্ডের জন্য বহুবার তাকে বারণ করা হয়েছে। কিন্তু সে শুনেনি।সে আমাদের ‘বেলুচ’ নামের উপর কলঙ্ক লেপন করছিল। আর তাই তাকে খুন কার সিদ্ধান্ত নেই।

খুনের আগেও কান্দিল নাকি বুঝতেই পারেনি যে তার ভাই তাকে সত্যি সত্যিই খুন করতে পারে। যদিও এরআগেও বহুবার মৃত্যুর হুমকি তাকে দেয়া হয়েছিল। এসম্পর্কে ওয়াসিম আরো বলেন, কান্দিল বুঝতেই পারেনি আমি তাকে হত্যা করতে যাচ্ছি। প্রথমে তাকে অচেতন হওয়ার ট্যাবলেট খাওয়াই। তারপর শ্বাসরোধ করে হত্যা করি।

2016_07_17_15_25_27_RYgQP4dCTlqtqS71Tm9F9I6gvYH5dg_original

এরআগে কান্দিলের খুন বিষয়ে প্রাথমিকভাবে পুলিশ জানিয়েছিল যে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে কান্দিলের যৌন উত্তেজক সেলফি দেয়াকে কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেতেন না তার ভাই। আর সে জন্য নাকি মাঝে মধ্যেই মডেল বোনকে হুমকিও দিতেন তিনি। ক’দিন আগেও নাকি ফেসবুকে উগ্র পোস্ট ও ভিডিও দিতে মানা করেছিলেন ভাই ওয়াসিফ।

মাত্র এক সপ্তাহ আগে অসুস্থ বাবাকে দেখেতে মুলতানে গিয়েছিলেন কান্দিল। পরিবারের সাথে ঈদও করেন তিনি। আর সেখানেই বোনের চলন বলন নিয়ে শুক্রবার রাতেও ভাইয়ের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এরপরই মূলত ওয়াসিম কান্দিলকে মেরে ফেলার জন্য উদগ্রীব হয়ে পড়ে।

প্রসঙ্গত, টি২০ বিশ্বকাপে পাকিস্তান জিতলে নগ্ন হবেন এবং বিরাট কোহলির প্রেমে পড়ে বার বার প্রেম নিবেদন করে বিভিন্ন ভিডিওর মাধ্যমে বার্তা দিয়ে সামনে আসেন পাক মডেল কান্দিল বালোচ। এছাড়া গত মাসে পাকিস্তানে চাঁদ দেখা কমেটির এক সদস্যের সঙ্গে সেলফি তুলেও আলোচিত হয়েছিলেন তিনি। কারণ সেলফি তোলার পরে ওই সদস্যকে বরখাস্ত করে দিয়েছিল পাকিস্তানের ‘চাঁদ দেখা কমেটি’।






মন্তব্য চালু নেই