মেইন ম্যেনু

পরীক্ষা জেএসসি, প্রবেশপত্রে এসএসসি

জেএসসি পরীক্ষা দরজায় এসে কড়া নাড়ছে। এরই মধ্যে প্রবেশপত্রে ধরা পড়েছে গুরুতর ভুল। জেএসসি পরীক্ষার স্থলে এসএসসি হয়ে গেছে। কতগুলোতে আবার এইচএসসি ছাপা হয়েছে। পরীক্ষার দুই দিন আগে এমন ভুল প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থীকে অনিশ্চয়তারা মধ্যে ফেলে দিয়েছে। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে সাতটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এক হাজার শিক্ষার্থীর প্রবেশপত্রে এমন ভুল ধরা পড়েছে। এ ধরনের ভুল আরও বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও হয়েছে।

আগামী ১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে জেএসসি পরীক্ষা। এর আগে এ ধরনের ভুল সংশোধন হবে কিনা তা নিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। তবে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা পরীক্ষার আগেই ভুল সংশোধনের ব্যাপারে নিশ্চয়তা দিয়েছেন।

জানা যায়, শ্রীমঙ্গল উপজেলার হুগলিয়া হাজী মুনছুব উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়, হাজী আব্দুল গফুর উচ্চ বিদ্যালয়, উদয়ন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, শাহ মোস্তফা জে আই জুনিয়র হাইস্কুল, মনা উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয় ও বিষামুনী উচ্চ বিদ্যালয়ের এক হাজার জেএসসি পরীক্ষার্থীর ইংরেজিতে ছাপানো প্রবেশপত্রে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেটের স্থলে হায়ার সেকেন্ডারি সার্টিফিকেট, স্কুলের স্থলে কলেজ এবং জন্ম তারিখের স্থলে গ্রুপ ছাপা রয়েছে। ভুলে ভরা প্রবেশপত্র হাতে পেয়ে শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটে যান।

শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা জানান, এ ব্যাপারে তারা খুবই উদ্বিগ্ন। রাত পোহালেই পরীক্ষা। এ সময়ের মধ্যে কিভাবে এই ভুল সংশোধন করা যাবে তা বোঝা যাচ্ছে না।

তবে শ্রীমঙ্গল মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দিলীপ কুমার বর্ধন জানান, সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিবকে শনিবারের মধ্যে ভুল সংশোধন করে আনার জন্য বলা হয়েছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. নোমান আহমদ সিদ্দিকী জানান, বোর্ডের ভুলের কারণে এমন সমস্যা হয়েছে। তাই বোর্ডকে এর দায়ভার নিয়ে পরীক্ষার আগেই প্রবেশপত্রের ভুল সংশোধন করে দিতে হবে।

এ ব্যাপারে সিলেট শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আব্দুল মান্নান জানান, ভুল সংশোধন করে পরীক্ষার আগেই প্রবেশপত্র নিজ নিজ পরীক্ষা কেন্দ্রে বা স্কুলে পাঠিয়ে দেয়া হবে। যারা এ ভুলের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থাও নেয়া হবে।বাংলামেইল






মন্তব্য চালু নেই