মেইন ম্যেনু

পরীমনি হবেন আগামী দিনের শাবানা!

ফর্সা, লম্বা, এক্কেবারে যেন পরী। প্রথম দেখাতেই প্রেমে পড়ে যাবেন, এটা নিশ্চিত করে বলতে পারি। টেলিভিশনে স্যান্ডেলিনা স্যান্ডাল সোপের বিজ্ঞাপন দেখছেন তো! আহ কী মিষ্টি মেয়েটি। তিনি আমাদের ঢাকাই চলচ্চিত্রের এ সময়ের সুপার বিউটি কুইন পরীমনি।

মডেলিং থেকে ছোট পর্দায় এবং তারপর রূপালী পর্দায় অভিনয় শুরু করেন পরীমনি। ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের আগে পরীমনি সেকেন্ড ইনিংস, এক্সক্লুসিভ, এক্সট্রা ব্যাচেলর, নারী ও নবনীতা তোমার জন্য এ চারটি ধারাবাহিক নাটকে কাজ করেছেন। এর মধ্যে ‘নারী ও নবনীতা তোমার জন্য’ নাটকে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন পরীমনি।

প্রথম অভিনীত নাটকেই তিনি ইলিয়াস কাঞ্চন এবং চম্পার সঙ্গে অভিনয়ের সৌভাগ্য অর্জন করেন। ছবি মুক্তির আগেই বিভিন্ন সময় খবরের শিরোনাম হন পরীমনি।

পরীমনি বড় হয়েছেন পিরোজপুরে নানা শামসুল হক গাজীর কাছে। এসএসসি পর্যন্ত বরিশালেই পড়াশোনা করেছেন। ২০১১ সালে ঢাকায় চলে আসেন এবং বাফায় নাচ শেখেন। এর পরেই মিডিয়া আসেন তিনি।

গত রোববার (৩১ জানুয়ারি ২০১৬) বিভিন্ন গণমাধ্যমে পরীমনি সংক্রান্ত একটা খবর বেশ আলোচিত হয়। ওই খবরে বলা হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে কিছু স্থিরচিত্র প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত স্থিরচিত্রের ক্যাপশনে লেখা হয় স্বামীর সঙ্গে পরীমনি। তারপর এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠে।

এ প্রসঙ্গে পরীমনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘যার সাথে আমার ছবিটি প্রকাশ করা হয়েছে, ওনি আমার কাজিন। ওনার স্ত্রীও রয়েছেন। এ ধরনের খবর ওনিও জানেন না। কেউ ইচ্ছে করেই আমার নামে বদনাম ছড়াচ্ছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ছোটবেলা থেকে তাকে দেখে আসছি। তার সাথে ছবি তুলতেই পারি। তার মানে এই নয় যে, তার সাথে আমার অন্য কোনো সর্ম্পক রয়েছে। ছবি তুললেই আমার জামাই হবে এটা কেমন কথা? কতজনের সঙ্গেই তো ছবি তুলি, তারা সবাই কী আমার জামাই? কি এমন ছবি যে জামাই মনে হবে।’

অনিক আব্রাহাম নামে একটি ফেসবুক আইডি থেকে ৩১ জানুয়ারি সকালে পরীমনির কিছু ছবি শেয়ার করা হয়। অনিক দাবি করেন, পরী তার বন্ধু ইসমাইলের স্ত্রী। তিনি ছবিগুলো শেয়ার করে ফেসবুকে লেখেন, ‘আমার বন্ধু ইসমাইল আর তার স্ত্রী স্মৃতিমনি যে আজ বাংলা চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি, এক সময় ভোলা সদরেই থাকত তার জামাই বাড়িতে। তারপর তার নেশা গেল অর্থ আর লোভ লালসার দিকে। যার জন্য আমার সহজ সরল বন্ধুকে ত্যাগ করতেও দ্বিধাবোধ করল না। যাইহোক ছবিগুলো দেখে পুরনো দিনের কথা মনে পড়ে গেল। তাই সবার সাথে একটু শেয়ার করলাম।`

এর পরেই ‘সরি টু সে… ভাবখানা এমন যে আমার সেক্স ভিডিও পেয়ে গেছেন! ওরে ভাই এ রকম পিক আমার হাজার জনের সাথে আছে। তার মানে এই না যে সেই হাজার জন আমার জামাই লাগে। আর কি এমন পিকখানা পাইছেন যেখানা নিয়ে এত্ত লাফালাফি শুরু কইরা দিছেন? ছবিটায় কী আমি বউ সেজে বাসর ঘরে বসে আছি? না আমি ন্যাংটা হয়ে দাঁড়িয়ে আছি কোনটা?’ ওই ঘটনার পরপরই ওইদিন বিকেলে ফেসবুকে এমনই একটি স্ট্যাটাস দেন পরীমনি।

পাঠক ইতিমধ্যেই হয়তো এর কারণ অনুমান করতে পারছেন। তবে এমন স্ট্যাটাস পড়ে অনেকেই কিন্তু হতবাক হয়েছেন এমন ঘটনায়। এমন স্ট্যাটাসের কারণও আছে। অনিক আব্রাহাম নামের একজনের একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পরীমনির বেশ কিছু ছবি আপলোড করা হয়। সেখানে তাকে এক যুবকের কোলে বেশ অন্তরঙ্গ ভঙ্গিতে দেখা গেছে। ছবিতে ফুটে ওঠা গ্রাম্য পরিবেশ দেখে স্পষ্ট বোঝা যায় ছবিগুলো পুরনো। এবং এটাও স্পষ্ট যে, সেগুলো পরীমনির আগের ছবি।

ছবিগুলো প্রকাশিত হওয়ার পর মৌচাকে যেন ঢিল পড়ে। পরীমনিকে নিয়ে শুরু হয় আলোচনা। সেই আলোচনার জবাব পরীমনি ফেসবুকে এভাবেই দিয়েছেন। তিনি ফেসবুকে আরো লিখেছেন : ‘এ রকম পিক তো আপনারা যারা আজ এই নিউজ করেছেন আপনাদের সাথেও আছে। যেটা এই ছবির তুলনায় অনেক বেশি কাছাকাছি হবে। তাহলে আপনার সবগুলোই আমার জামাই।’ পরীমনি এখানেই থেমে যাননি। তিনি এরপর অনুরোধ জানিয়ে লেখেন : ‘যে বা যাহারা আমার ক্ষতি করবেন বলে এসব করছেন তাদের বলছি, আমার ক্ষতি না বরং আপনাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করছেন। একচুয়ালি জার্নালিস্টদের প্রতি রেসপেক্ট রেখে বলছি আপনারা প্লিজ ভিত্তিহীন নিউজ করবেন না।’

এর আগেও বিভিন্ন সময়ে নানা গুঞ্জন গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়। যুগে যুগে সেলিব্রেটিদের এরকম নানা ঘটনার মুখোমুখি হতে হয়। পৃথিবীর বিখ্যাত বিখ্যাত সেলিব্রেটিদের এরকম বহু ঘটনা আছে। পৃথিবীর বিখ্যাত তারকাদের স্ক্যান্ডালের ঘটনা আমরা জানি। তারপরও তারা সবকিছু মোকাবিলা করে এগিয়ে গেছেন। সেসব ঘটনার কাছে পরীমনি এ ঘটনা কিছুই না।

আপনার (পরীমনি) কয়েকটা মুভি দেখেছিলাম। সেসব মুভিতে আপনার অভিনয় দেখে মনে হয়েছে, আপনার অভিনয়শৈলীর সম্ভাবনা আছে। তাই এসব ঘটনায় দমে না গিয়ে কীভাবে সামনে আগানো যায়, তা নিয়ে ভাবেন। আপনার ফেসবুক স্ট্যাটাস পড়ে মনে হয়েছে, নায়িকা হতে হলে আপনাকে আরো সহনশীলতার পরিচয় দিতে হবে।কতকিছুই তো ঘটবে…।

আপনিই তো এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ‘আমি অভিনয় নিয়ে থাকতে চাই। যে অভিনয় দেখে মানুষ আমাকে সারাজীবন মনে রাখবে।’ তাহলে আপনি কেন এরকম করেন? আপনাকে কতো কিছুই তো সহ্য করতে হবে। সবকিছু ভুলে হয়ে উঠুন না আগামী দিনের শাবানা কিংবা সুচিত্রা সেন।






মন্তব্য চালু নেই