মেইন ম্যেনু

পরী মণির শুটিংয়ে হামলা, আহত ৩

কক্সবাজারে চলচ্চিত্র শুটিংয়ের সময় হামলার ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। জাজ মাল্টিমিডিয়া সংস্থার ব্যানারে ‘রক্ত’ নামের ওই চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন চিত্রনায়িকা পরী মণি।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ি চাইন্দায় অবস্থিত ইন্টারন্যাশনাল এমিউজমেন্ট ক্লাবে এ ঘটনা ঘটে। তবে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, পরী মণি নিরাপদেই আছেন।

হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ব্যক্তিরা হলেন কক্সবাজার সদর উপজেলার বাংলাবাজার মৌলভীপাড়ার হামিদুল হক হামিদ (২৪), রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ি মুসলিমাবাদ এলাকার কাউসার আলমগীর আরাফাত (২৭) ও কোলাপাড়া টুলাটুলি এলাকার সজীব ভূঁইয়া সেলিম (২৭)।

হামলায় আহত তিনজনের মধ্যে রয়েছেন শুটিংদলের সদস্য সুমি ও রফিক।

জাজ মাল্টিমিডিয়া সংস্থার ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ উজ্জ্বল জানান, ‘রক্ত’ চলচ্চিত্র নিয়ে জাজ মাল্টিমিডিয়া সংস্থার শুটিং চলছিল ইন্টারন্যাশনাল এমিউজমেন্ট ক্লাবে। এ সময় শুটিং দলের ২৪৫ জন কলাকুশলী ছিল। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শুটিং শেষ হওয়ার মুহূর্তে ছয়-সাতজন দুর্বৃত্ত শুটিংয়ে বাধা দেয়। একপর্যায়ে শুটিংদলের সদস্যদের ওপর হামলা চালায় তারা। আতঙ্কিত হয়ে ছোটাছুটি করার সময় তিনজন আহত হয়। আহতদের দক্ষিণ মিঠাছড়ি চাইন্দায় অবস্থিত কক্সবাজার মা ও শিশু হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আজ শুক্রবার এ ব্যাপারে রামু থানায় একটি মামলা করা হয়েছে।

এদিকে, হামলার ঘটনা ঘটলেও গুজব ওঠে চিত্রনায়িকা পরী মণিকে অপহরণ করাই ছিল দুর্বৃত্তদের লক্ষ্য। এ ব্যাপারে মোহাম্মদ উজ্জ্বল জানান, হামলার আগেই শুটিং শেষ করে চলে যান পরী মণি। তিনি নিরাপদে আছেন।

যোগাযোগ করা হলে পরী মণির ব্যবস্থাপক মেহেদী হাসান বলেন, রক্ত ছবির শুটিং করার সময় স্থানীয় একদল যুবক এসে কয়েকজন অভিনেত্রীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। এ নিয়ে বাকবিতণ্ডা হলে যুবকরা কয়েকজনকে মারধর করেন। পরে পুলিশকে খবর দিলে তারা এসে তিন যুবককে আটক করে নিয়ে যায়। পরী মণিকে অপহরণের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর জানান, ইন্টারন্যাশনাল এমিউজমেন্ট ক্লাবে চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে দুর্বৃত্তদের হামলার বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। ঘটনা শোনার পর পরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করেছে। চলচ্চিত্র শুটিংয়ের কাজে হামলার ঘটনায় জড়িত অন্যদের আটক করতে পুলিশের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই