মেইন ম্যেনু

পর্ন থেকে সম্পর্কে টানাপোড়ন

বিশেষ করে এই ধরনের সিনেমা দেখার ফলে পুরুষের মধ্যে অসন্তুষ্টি দেখা দিতে পারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্লুমিংটনের ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটির পল রাইট ও তার সহকর্মীরা এই বিষয়ে গবেষণার জন্য ১০টি দেশের ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষের অংশগ্রহণে করা ৫০টি গবেষণার ফলাফল পর্যালোচনা করেন। গবেষকরা দেখতে পান, “পর্নগ্রাফির’ দেখার ফলে সম্পর্কের সন্তুষ্টি কমে যাওয়ার সম্পর্ক রয়েছে।”

‘হিউম্যান কমিউনিকেশন রিসার্চ’ জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণায় আরও দেখা গেছে, পর্ন দেখার ফলে নারীদের মধ্যে সম্পর্কের সন্তুষ্টিতে তেমন কোনো প্রভাব ফেলে না। গবেষণায় বলা হয়, “পর্নগ্রাফির সঙ্গে সম্পর্কের অসন্তুষ্টির ফলাফল জানার জন্য অন্যান্য প্রতিবেদনের প্রকৃতি বা প্রকাশের তারিখ নিয়ন্ত্রণ করা হয়নি। তবে লিঙ্গ ভেদে পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে এই ফলাফল পুরুষদেরই নির্দেশ করে।”

পর্ন দেখায় যৌনমিলনের ক্ষেত্রে নিজের ও নিজের শরীরের উপর আত্নবিশ্বাসের মাত্রার মধ্যে কোনো সম্পর্ক আছে কিনা সেটাও পর্যবেক্ষণ করেন গবেষকরা। তবে এমন কোনো সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়নি। শারীরিক সৌন্দর্য সম্পর্কে অস্বাস্থ্যকর ও অবাস্তব আকাঙ্ক্ষা জন্ম দেয় পর্ন সিনেমা- যারা এই ধারণায় বিশ্বাসী তাদের জন্য এই গবেষণার ফলাফল চমকপ্রদ হতে পারে।






মন্তব্য চালু নেই