মেইন ম্যেনু

পর্যটকদের সেলফিতে ময়ূরের হার্ট অ্যাটাক !

বিশ্বব্যাপী চলছে সেলফি তোলার হিড়িক। যে যেখানে যাচ্ছেন, যে অবস্থায় আছেন হাতের স্মার্ট ফোনটা বের করেই চট জলদি তুলে ফেলছেন সেলফি। এক কথায় বলা যায় বিংশ শতাব্দির জনপ্রিয় ওয়ার্ডে পরিণত হয়েছে সেলফি শব্দটি। আর এ সেলফি তুলেতে গিয়ে ইতিপূর্বে দূর্ঘটনার কথা জানা গেলেও এবার ঘটলো ব্যতিক্রমী এক ঘটনা।

আর্জেন্টিনায় সেলফি তোলার হিড়িকে ডলফিনের মৃত্যুর পর এবার মৃত্যু ঘটলো চিড়িয়াখানা ময়ূরের।

দক্ষিণ-পূর্ব চীনের ইউনান ওয়াইল্ড অ্যানিম্যাল পার্কে পর্যটকদের খুশির জন্য মরতে হল দু’টি ময়ূরকে। আধঘণ্টা ধরে চলা সেলফি শুটে হার্টফেল করে মারা গেল পাখি দু’টি।

ঘটনাটি ঘটে ১২ ফেব্রুয়ারি। ময়ূরের সঙ্গে তোলা সেলফি ওয়েইবো নামে একটি ব্লগে প্রকাশ পেতেই সমালোচনার ঝড় ওঠে।

চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে জানান, কোনো বন্য প্রাণীকে বিরক্ত না করার কড়া নির্দেশিকা দেয়া থাকে চিড়িয়াখানায়। কিন্তু ওই দিন কয়েকজন নিরাপত্তারক্ষীদের অগোচরে ময়ূর দু’টিকে কোলে নিয়ে ফটো তুলছিলেন।

রক্ষীরা দেখামাত্র ছুটে গিয়ে ময়ূরগুলোকে মুক্ত করেন। কিন্তু ততক্ষণে অসুস্থ হয়ে পড়েছিল তারা। কিছুক্ষণ পরেই ময়ূর দু’টি মারা যায়।

প্রাণী চিকিৎসক লি জানান, প্রচন্ড ভয়ে ময়ূর দু’টির হার্টফেল করে মারা যায়।

ওয়েইবোতে পোস্ট হওয়া ছবিতে দেখা গেছে, ময়ূর কোলে চেপে একজন ছবি তুলছে। আর একজন ময়ূরের পেখম ছিঁড়ছে, তাক লাগানো সেলফির নেশায়। এভাবে নিরীহ পাখির ওপর অত্যাচারের ছবি প্রকাশ পেতেই নিন্দার ঝড় উঠেছে।

এক সপ্তাহ আগেই আর্জেন্টিনার একটি সমুদ্র সৈকতে এভাবে সেলফি তুলতে গিয়ে মারা পড়েছিল শিশু ডলফিন। পানিতে ভেসে ওঠা ডলফিন নিয়ে বিভিন্ন পোজে ছবি তুলতে গিয়ে মারা যায় সেটি। তাতেও সেলফির হিড়িক কমেনি। নির্লজ্জ কিছু মানুষ ডলফিনের নিথর দেহর সঙ্গে ফূর্তিতে ছবি তোলে। তারপর ফের চীনের ঘটনায় উদ্বিগ্ন বন্যপ্রাণী বিশেষজ্ঞরা।






মন্তব্য চালু নেই