মেইন ম্যেনু

পাইকগাছা পৌরসভার সব কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ

খুলনার পাইকগাছা পৌরসভার নয় কেন্দ্রের সবগুলোকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে বিজিবি, র্যা ব, পুলিশ ও আনসারের অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন থাকবে।

খুলনার চালনা পৌরসভায় এখনো ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র চিহ্নিত করেনি নির্বাচন অফিস ও স্থানীয় প্রশাসন।

পাইকগাছা উপজেলার সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো. হযরত আলী জানান, এ পৌরসভার কেন্দ্রগুলোর অবকাঠামো নাজুক এবং ঝুঁকিপূর্ণ। এ ছাড়া অধিকাংশ কেন্দ্র অলিগলিতে এবং প্রার্থীদের বাড়ির কাছাকাছি অবস্থিত। যোগাযোগ ব্যবস্থাও তেমন ভালো না। এ কারণে স্থানীয় থানা পুলিশের সঙ্গে আলোচনা করে সবকটি কেন্দ্রকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এ পৌরসভার নয় কেন্দ্রের ৩৮টি কক্ষ বা বুথে ভোট নেওয়া হবে বলে জানান রিটার্নিং অফিসার মো. হাবিবুর রহমান। তিনি বলেন, প্রতিটি কেন্দ্রেই বিজিবি, র্যা ব, পুলিশ, কোস্টগার্ড ও আনসার সদস্যরা মোতায়েন থাকবে।

চালনা পৌরসভায় এখনো ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র চিহ্নিত করেনি নির্বাচন অফিস ও স্থানীয় প্রশাসন। সহকারী রিটার্নিং অফিসার কাজী মাহমুদ হোসেন জানান, এ পৌরসভায় নয়টি কেন্দ্রের ৩১টি কক্ষে ভোট নেওয়া হবে। আগামী দু-একদিনের আইন-শৃংখলা সেলের মিটিংয়ে অধিক গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র নির্বাচন করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

পৌরসভা নির্বাচনে প্রতি তিন ওয়ার্ডের জন্য একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও প্রতিটি পৌরসভার জন্য একজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবে। এ ছাড়া সাধারণ ভোটকেন্দ্রে ১৯ জন এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ২০ জন ফোর্স মোতায়েন করা হবে।

১৯৯৭ সালের ১ ফেব্রুয়ারি মাত্র ২ দশমিক ৫ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে গঠিত হয় পাইকগাছা পৌরসভা। গত তিনটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এ পৌরসভার মোট ভোটার ১২ হাজার ৬৮৫ জন।






মন্তব্য চালু নেই