মেইন ম্যেনু

পাওয়া গেল দৈত্য পেঁয়াজের সন্ধান!

বর্তমান বাজারে পেঁয়াজের যে দরদাম চলছে, এতে দৈত্য পেঁয়াজ আমাদের অনেকাংশে সাহায্য করতে পারে। পেঁয়াজ কেটে যদি আপনার চোখ থেকে প্রতিনিয়ত পানি ঝরে তাহলে এই পেঁয়াজ কাঁটার সময় আপনার বালটির প্রয়োজন হতে পারে।

টনি গ্লোভার এর মেগা-পেঁয়াজ ১৮ পাউন্ড ১১ অজের সমান। যা পূর্ববর্তী গিনেজ রেকর্ডের অধিকারীকে হারিয়ে দিয়েছেন। পূর্বে যার এই রেকর্ড ছিল তার দৈত্য পেঁয়াজের ওজন ছিল ১০ পাউন্ড। বর্তমানে টনি গ্লোভার এই দৈত্য পেঁয়াজের কারণে গিনেজ বুকে নিজের নাম লিখিয়েছেন।

এই দৈত্য পেঁয়াজ যদি ভালভাবে সকল জায়গায় চাষ করা যায় তাহলে পেঁয়াজের দামের ঊর্ধ্বগতি কিছুটা কমিয়ে আনা যেতে পারে।

৫০ বছর বয়সী টনি গ্লোভার জানান, তিনি পেঁয়াজ উৎপাদনের জন্য নাইট্রোজেন সমৃদ্ধ খাবারের ব্যবহার করেন। যখন দিন ছোট হয়ে আছে তখন তিনি সেখানে আলোর ব্যবস্থা করেন, যাতে করে পেঁয়াজের পর্যাপ্ত আলো দেয়া যায়। তিনি তার ১৬ বছর বয়স থেকে পেঁয়াজ উৎপাদন করা শুরু করেছেন। তিনি চান সকলে যেন ৫ পাউন্ড এর পেঁয়াজ উৎপাদন করার পদক্ষেপ নেন।–সূত্র: মেট্রো।






মন্তব্য চালু নেই