মেইন ম্যেনু

পানি খেতে চাওয়ায় শিক্ষকের মারে হাসপাতালে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র

পানির অপর নাম জীবন। জীবন বাঁচাতে পানি খেতে চেয়েছিল পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্র। সে কারণে শিক্ষকের মার খেয়ে সে এখন হাসপাতালে ভর্তি। এ ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ কোচবিহারের জেনকিন্স স্কুলে।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অাক্রান্ত ছাত্রের পরিবারের দাবি, বৃহস্পতিবার টিফিনের পর ক্লাস শুরু হলে ওই ছাত্র শিক্ষকের কাছে পানি খাওয়ার অনুমতি চান।

অভিযোগ, এরপরই বেত দিয়ে পঞ্চম শ্রেণির ওই ছাত্রকে মারধর করতে শুরু করেন শিক্ষক নদীনূলমূল হক। এমনকি অপ্রাসঙ্গিক কথাও বলেন।

রাতে ছাত্র অসুস্থ হয়ে পড়লে এম জে এন হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তার চিকিৎসা চলছে। যদিও মারধরের ঘটনা অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত শিক্ষক।

ছাত্রের মার খাওয়ার ঘটনায় স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ঘিরে ধরে শুরু হয় বিক্ষোভ। দীৰ্ঘ সময় ধরে প্ৰধান শিক্ষকের ঘরে ঢুকে চলে বিক্ষোভ। আক্রান্ত ছাত্রের অভিভাবকদের সঙ্গে ছিলেন অন্য ছাত্রের অভিভাবকরাও।

অভিভাবকদের অভিযোগ খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন প্রধান শিক্ষক রামচন্দ্র মণ্ডল।

শুধু প্রধান শিক্ষকই নয়, এ স্কুলের পরিচালন পর্ষদের সভাপতি তথা কোচবিহারের জেলাশাসককেও লিখিতভাবে অভিযোগ জানানো হয়েছে।

অভিযোগ জানানো হয়েছে কোচবিহার কোতয়ালি থানাতেও। কলকাতা থেকে জেলা রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।

এবার কর্পোরাল পানিশমেন্টের সেই তালিকায় কোচবিহারের সবথেকে পুরনো স্কুলও।






মন্তব্য চালু নেই