মেইন ম্যেনু

পাবনার ঈশ্বরদীতে যাযক হত্যাচেষ্টা মামলায় ৫ জেএমবি সদস্য গ্রেফতার

পাবনার ঈশ্বরদীতে বাসায় ঢুকে ফেইথ বাইবেল চার্চের যাযক লুক সরকার (৫০) কে গলা কেটে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় জড়িত ৫ জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি) সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় পাবনা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার আলমগীর কবির।

তিনি জানান, ঘটনার পর থেকে বিভিন্ন সময়ে পাবনা, সিরাজগঞ্জ ও ঢাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে এই ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বেশকিছু জিহাদী বই।

গ্রেফতারকৃত ৫ জেএমবি সদস্য হলেন-পাবনা সদর উপজেলার নাজিরপুর নিয়ামতুল্লাহপুর মৃত নওশের প্রামানিকের ছেলে আব্দুল আলিম (৩৬), নুরপুর গাংকোলা গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে আব্দুর রাকিব ওরফে রাব্বি (২২), একই উপজেলা সিংগা পালপাড়া গ্রামের আব্দুর রহিম শেখের ছেলে জিয়াউর রহমান (৩৫), মজিদপুর মধ্যপাড়া গ্রামের মুনছুর আলীর ছেলে শরিফুল ইসলাম ওরফে তুলিব (২২) ও সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বাঘবাড়িয়া গ্রামের কাশেম আলীর ছেলে আমজাদ হোসেন (৩০)।

পুলিশ সুপার আলমগীর কবির আরও জানান, গ্রেফতারকৃত এই ৫ জেএমবি সদস্য যাজক লুক সরকার হত্যাচেষ্টার ঘটনার সাথে জড়িত বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে পুলিশের কাছে। তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

প্রসঙ্গত: গত ৫ অক্টোবর সকালে নয়টার দিকে তিন যুবক মোটর সাইকেলযোগে ঈশ্বরদী বিমানবন্দর সড়কে ভাড়া বাসায় ঢুকে ধর্মগ্রন্থ পাঠ শোনার কথা বলে ঈশ্বরদীর ফেইথ বাইবেল চার্চের যাজক লুক সরকারকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে ওইদিন দুপুরে রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইডিজ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, পাবনা পুলিশ সুপার আলমগীর কবির সহ সিআইডি ক্রাইমসিনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। যাযক লুক সরকারের বাড়ি সাতক্ষিরার তালা উপজেলায়। তিনি দীর্ঘ ৫ বছর ধরে ঈশ্বরদী বিমানবন্দর সড়কের স্কুলপাড়া এলাকায় জনৈক মনিরুল ইসলামের ভাড়া বাসায় পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন।






মন্তব্য চালু নেই