মেইন ম্যেনু

পার্কে বেড়াতে এসে বন্ধুর হাতে ধর্ষণের শিকার কলেজ ছাত্রী

সিরাজগঞ্জের ইকোপার্কে বেড়াতে এসে বন্ধুর হাতে ধর্ষিত হয়েছেন এক কলেজ ছাত্রী। রবিবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে ইকোপার্কের গভীর জঙ্গলে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ধর্ষক ও তার সহযোগীকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলো বেলকুচি উপজেলার রাজাপুর ডিগ্রী কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র খামার উল্লাপাড়া গ্রামের হেলাল হোসেনের ছেলে সোহেল রানা (১৯) এবং তার সহযোগী একই গ্রামের নাসির আকন্দের ছেলে কবির হোসেন (২০)। মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধারের পর সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালের গাইনী ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক আজগর আলী জানান, ‘বেলকুচি উপজেলার চক-মাহমুদ গ্রামের এক মালয়েশিয়া প্রবাসির মেয়ে একই মহা বিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ছাত্রীর সাথে সোহেল রানার বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। বন্ধুত্বের সম্পর্কের কারণে সোহেল রানা ও তার সহযোগী মিলে মেয়েটিকে ফুসলিয়ে বেড়ানোর কথা বলে ইকোপার্কে নিয়ে আসে। বেড়ানোর এক পর্যায়ে সোহেল রানা মেয়েটিকে নির্জন স্থানে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এরই এক পর্যায়ে মেয়েটির আর্তনাদ শুনে পার্ক কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় লোকজন পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ মেয়েটিকে আহত ও রক্ষাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে এবং সোহেলরানা ও তার সহযোগী কবিরকে আটক করে। এ ঘটনায় মেয়েটির মা বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফরিদুল ইসলাম জানান, মেয়েটির প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে।






মন্তব্য চালু নেই