মেইন ম্যেনু

পাশের ক্রেডিট কমানোর দাবিতে রুয়েট শিক্ষার্থীদের অবস্থান ধর্মঘট

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) পাশ করার জন্য নূন্যতম ক্রেডিট কমানোর দাবিতে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা। রুয়েটের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন।

শিক্ষার্থীরা জানান, এর আগে একজন ছাত্র কোনো বিষয়ে অকৃতকার্য হলে তাকে চতুর্থ বর্ষ পর্যন্ত ওই কোর্সে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ দেয়া হত। নতুন নিয়মে কোনো শিক্ষার্থীরা বর্ষভেদে ৩৭, ৩৮, ৪০ ও ৪১ ক্রেডিটের মধ্যে ৩৩ ক্রেডিট না তুলতে পারলে পরবর্তী বর্ষে ক্লাস করার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। আর কোনো শিক্ষার্থী পর পর ৩ বার কোনো কোর্সে অকৃতকার্য হলে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ড্রপ আউট (ছাত্রত্ব বাতিল) করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এ নিয়ম বাতিলের দাবিতে সোমবার শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। এরপর মঙ্গলবার সকাল ৯টার সময় তারা রুয়েট উপাচার্যের দফতরের সামনে অবস্থান নেন। এসময় তারা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। দুপুর সাড়ে ১২টার সময় তারা সেদিনের মতো কর্মসূচি বন্ধ করে চলে যান।

এদিকে শিক্ষার্থীদের দাবি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক আখ্যায়িত করে রুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক রফিকুল আলম বেগ বলেন, কোনো শিক্ষার্থীকে পরের ক্লাসে ওঠার জন্য ৪০ ক্রেডিটের মধ্যে ৩৩ ক্রেডিট অর্জন করতে হয়। যা আগে ছিলো ৩৫ ক্রেডিট। শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্তক্রমে এটা ৩৩ ক্রেডিটে নামিয়ে আনা হয়েছে।

এছাড়া আগে এই পদ্ধতিটা আরো কঠিনভাবে পালন করা হতো। ১৯৬৪ সালের দিকে পরপর দুই বছর ফেল করলে তাকে একই ক্লাসে দুইবার থাকতে হতো।

তিনি আরো বলেন, ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের যেসব শিক্ষার্থী এই আন্দোলন করছে তাদের মদদ দিচ্ছে গুটি কয়েক শিক্ষার্থী। ২০১৩ শিক্ষাবর্ষের ৭২৫ জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে মাত্র ২৯ জন শিক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছে। আর এরাই এই ভিত্তিহীন আন্দোলন করছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।






মন্তব্য চালু নেই