মেইন ম্যেনু

পায়ের বাহারি সাজ

ফারিন সুমাইয়া : কারো পায়ের দিকে তাকালেই তার রুচির পরিচয় পাওয়া যায়। তাই পা সবসময় সুন্দর ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা জরুরি। এছাড়া অন্যান্য অঙ্গের মতই আপনার পা সৌন্দর্য্য বহনের একটি অংশ। আপনার ব্যক্তিত্ব অনেক সময় আপনার পা দেখে বুঝা যায়। এছাড়া পূজা-প্লাবনে, উৎসবে আপনি আপনার নিজেকে সাজানোর সাথে সাথে চাইবেন আপনার পা`কেও সমানভাবে সাজাতে। তাই চলুন জেনে নেয়া যাক পা কিভাবে সাজাবেন।

পায়ের নখের নকশা :
যত্ন নিয়ে পা সাজিয়ে নিন সুন্দর করে। পা সাজানোর ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন নেইল আর্ট। কয়েক রঙের নেইল পলিশ ব্যবহার করে তবেই এই নেইল আর্ট করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে আলাদা করে স্টোন, স্টার বসিয়ে আনা হয় গর্জিয়াস লুক। ফ্লোরাল, জিগজ্যাগ বিভিন্ন নকশা করছেন তরুণীরা। এই নেইল আর্ট চাইলে বাড়িতেও করা যায়। নিয়মিত নেইল পলিশ যারা ব্যবহার করেন, তারা তিন থেকে চার দিন পরপর তুলে নতুন করে দেবেন। বেশি দিন থাকলে নখে হলদেটে ভাব এসে যায়। আর নেইল পলিশ তোলার সময় খুব বেশি নেইল রিমুভার ব্যবহার করবেন না। এতে নখের এনামেল নষ্ট হয়।

অলংকার :
ডিজাইনের রুপার মল পরতে পারেন। রুপার আংটি আর রুপার মলের চল এখনও রয়েছে ছোট বা বড় উৎসবভেদে সব সময় এ ধরনের অলংকার মেয়েরা পায়ে পরে থাকেন। তবে এখনকার তরুণীদের হাই ফ্যাশনের তালিকায় আছে মেটাল, সুতা, পুঁতির তৈরি ম্যাচিং কন্ট্রাস্ট মল। যেকোনো পোশাকের সঙ্গেই চলতে পারে এ ধরনের মেটালের পায়েল। তাই তরুণীরা এগুলো বেশ পছন্দ করছেন।

কোথায় পাবেন :
পায়ের সাজে রুপার পায়েল আর আংটি কিনতে পাওয়া যায় আড়ংয়ে এবং চাঁদনী চকে বা রুপার দোকানগুলোতেও। রুপার গয়নার দাম নির্ভর করে ওজন ও নকশাভেদে। এ ছাড়া পিরান, যাত্রা, দেশাল, মাদুলি, বিবিয়ানায় পাওয়া যায় মেটাল, পুঁতি বা সুতার পায়েল। এগুলোর দাম ৫০ থেকে ২৫০-এর মধ্যে । আবার বিভিন্ন উৎসব-পার্বণে দেখা যায়, পুঁতির পণ্যের পসরা সাজিয়ে নারীরা জোড়া ১০ টাকায় বাহারি রঙের পায়েল বিক্রি করছেন। এ ছাড়া নেইল পেইন্ট, স্টোন বা প্লাস্টিকের আংটি এবং ইমিটেশন পায়েল পাওয়া যায় বড় বড় শপিং মলে।






মন্তব্য চালু নেই