মেইন ম্যেনু

পুরুষাঙ্গ কর্তন: চিকিৎসকের কারাদন্ড

পুরুষাঙ্গ কর্তন করার দায়ে সিরাজগঞ্জে রফিকুল ইসলাম (৪৬) নামে এক হোমিও চিকিৎসককে ৭ বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ২ মাসের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। দন্ডপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম (৪৬) শাহাজাদপুর উপজেলার গাড়দহ নতুনপাড়ার মৃত নুরু ব্যাপারীর ছেলে। বৃহস্পতিবার বিকেলে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ মোরশেদ আলম এ রায় প্রদান করেন।

মামলার বরাত দিয়ে সিরাজগঞ্জ কোর্ট পরিদর্শক মোঃ শহিদুল্লাহ জানান, দন্ডপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম একই এলাকার মন্টু মিয়ার অবিবাহিত ছেলে শাহিন আলমের (২৩) কাছে ১০ হাজার টাকা হাওলাত চেয়ে ব্যর্থ হয়ে তার উপরে ক্ষিপ্ত ছিল। এ কারনে ২০১৫ সালের ১৬ জুন রাতে দন্ডপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম ভিকটিম শাহিন আলমের বাড়িতে গিয়ে ঘরের দরজা খুলতে বললে সে দরজা খুলে দেয়।

এ সময় রফিকুল তার হাতে থাকা কেমিক্যাল মিশ্রিত রুমাল শাহিনের মুখে ধরলে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এরপর বেল্ড দিয়ে শাহিন আলমের পুরুষাঙ্গ সম্পন্ন ভাবে কর্তন করে ফেলে। এ ঘটনায় শাহিন আলমের বাবা মন্টু মিয়া শাজাহাদপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর আদালতে আসামীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি এবং সাক্ষ্য প্রমান শেষে আসামীর উপস্থিতিতে এ রায় প্রদান করেন। সরকার পক্ষে এপিপি আব্দুর রউফ পান্না এবং আসামী পক্ষে এ্যাডঃ আব্দুর রহিম মামলা পরিচালনা করেন। এ ঘটনার পর ভিকটিম শাহিন আলম জীবিত থাকলেও যৌন ক্ষমতা হারিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই