মেইন ম্যেনু

পুরুষেরও হতে পারে স্তন ক্যান্সার!

স্তন ক্যান্সার একটি সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যা। বর্তমানে পশ্চিমা বিশ্বসহ বেশিরভাগ অঞ্চলে রীতিমতো আতঙ্কের নাম স্তন ক্যান্সার।

প্রাথমিক পর্যায়ে নির্নয় করা গেলে এর চিকিৎসা সহজ। এমনকি পুরোপুরি মুক্তিও পাওয়া সম্ভব।

তাই স্তন ক্যান্সার রোধে সচেতনতার উপর জোর দেন চিকিৎসকরা। নিয়মিত স্তন পরীক্ষা করা কিংবা প্রতি এক অথবা দুই বছর অন্তর স্তনের এক্সরে তথা ম্যামোগ্রাম করতে বলেন তারা।

নারীরা চিকিৎসকদের পরামর্শ শুনে স্তন ক্যান্সার থেকে সহজেই রেহাই পাচ্ছেনও।

তবে একই রোগের ঝুঁকি থাকলেও স্তন ক্যান্সারের বিষয়ে অন্ধকারে আছেন পুরুষরা।

ক্যান্সার হওয়া তো দূরের কথা, নিজেদের শরীরে স্তনের অস্তিত্বটুকুই মানতে চান না পুরুষরা। চিকিৎসকরা বলছেন, স্রেফ সচতেনতার অভাবে স্তন ক্যান্সার থেকে রেহাই পাচ্ছেন না পুরুষরা। রোগ যখন ছড়িয়ে পড়ে যখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে পৌঁছে যান তখনই চিকিৎসার জন্য ছোটেন তারা।

ক্যান্সার বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, নারীদের মতোই ব্রেস্ট টিস্যু থাকে পুরুষদেরও। সেখানেই ক্যান্সারাস টিউমারের জন্ম হয়। বছর চল্লিশের পরে যা পুরুষদের শরীরে থাবা বসাতেই পারে৷

চিকিত্‍সকেরা জানাচ্ছেন, পুরুষদের স্তন ক্যান্সারের ক্ষেত্রে বিলম্ব বা অবহেলা প্রাণঘাতী হয়ে পড়তে পারে৷ কারণ, মহিলাদের মতো স্তনে ক্যান্সার হলেও, তা মহিলাদের তুলনায় অনেক দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ে পুরুষ শরীরে৷

ভারতের বিশিষ্ট ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ তথা বেঙ্গল অনকোলজি ফাউন্ডেশনের সম্পাদক গৌতম মুখোপাধ্যায় বলছেন, নারীদের মতো পরিণত না হলেও, পুরুষদেরও স্তন থাকে। সেখানে ক্যান্সার হওয়াটাও কোনো অস্বাভাবিক ঘটনা নয়৷ সংখ্যায় কম হলেও, আজকাল আমরা পুরুষের স্তন ক্যান্সারের বেশ কিছু কেস পাচ্ছি৷ যদিও, সেগুলো সবই প্রায় আসে একেবারে শেষ পর্যায়ে।

ব্রেস্টক্যান্সার বিশেষজ্ঞ দীপ্তেন্দ্র সরকার বলেন, স্তনে কোনো মাংসপিণ্ড গজালেও, সেটাকে প্রথমে এড়িয়ে যান৷ আর যতক্ষণে শুভবুদ্ধির উদয় হয়ে চিকিত্‍সকের কাছে আসেন, ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে যায়।

তবে স্তনে কোনো মাংসল পিণ্ডের জন্ম হলেই যে তাকে ব্রেস্ট টিউমার হতে হবে, এমনটা নয়৷ অনেক সময় তা গোইনেকোম্যাস্টিয়াও হতে পারে৷

বয়ঃসন্ধিকালে পুরুষ শরীরে মহিলা হরমোনের নিঃসরণ বেড়ে যাওয়ায় মহিলাদের মতো সুগঠিত স্তন সৃষ্টি হওয়াকে গাইনেকোম্যাস্টিয়া বলে।

এই গাইনেকোম্যাস্টিয়ার সঙ্গে পুরুষদের ব্রেস্ট টিউমারের আকৃতিগত কিছুটা মিল অনেক সময়েই পুরুষ শরীরে স্তন ক্যান্সারের ‘ডিটেকশন’-এ সমস্যার সৃষ্টি করে৷

চিকিৎসকদের পরামর্শ, স্তনে কোনো মাংসল পিণ্ডের উপস্থিতি টের পেলেই সাবধান হোন৷ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন৷






মন্তব্য চালু নেই