মেইন ম্যেনু

পুলিশ দেখে সটকে গেলেন কাজী!

রাজশাহী ব্যুরো প্রধান: রাজশাহী নগরীতে ১৩ বছর বয়সী এক শিশুর সঙ্গে ২৩ বছরের এ যুবকের বাল্যবিয়ের আসরে পুলিশের হানা। এসময় পুলিশ দেখে সটকে গেলেন কাজী। সেই সঙ্গে পালিয়ে গেলেন মেয়ের বাবা তাপস ও বর শরিফুল ইসলামসহ বিয়ের লোকজন।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় নগরীর মাসকাদিঘী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসি জানান, পুঠিয়ার বাশপুকুর এলাকার শরিফুল ইসলাম (২৩) সঙ্গে পারিবারিক ভাবে (ছদ্মনাম বিথীর) বিয়ের কথা হয়। সেই সুবাদে তারা দুপুরে বিয়ে করতে আসে। শরিফুল মাসকাটাদিঘী এলাকায় সাইকেল হাটে কাজ করে।

শুক্রবার দুপুরে বর পক্ষ আসে বিয়ে করতে। তাদের দুপুরের খাওয়া দাওয়া হয়ে গেলে বিকেলে কাজী বিয়ে পড়াতে বসে কাজী।

এসময় পুলিশ দেখে মেয়ের বাবা, বর ও কাজী পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ মেয়ে মাসহ এলাকাবাসিকে ডেকে বলেন, মেয়ের বয়স ১৮ বছর হয় নি। মেয়ের ১৮ বছর হলেই তাদের বিয়ে হবে।

মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ন কবির জানায়, ১৮ বছরের নিচে কোন মতেই বিয়ে হবে না। খবর পাওয়া মাত্রই আমি সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি। বাল্যবিবাহ হবে না, বন্ধ করার জন্য পুলিশ গেছে।






মন্তব্য চালু নেই